করোনা আবহে বিন্দোলের গ্রামে সক্রিয় কিডনি পাচারচক্র

385

রায়গঞ্জ: উত্তর দিনাজপুরের বিন্দোলের জালিপাড়া গ্রামে ফের সক্রিয় কিডনি পাচারচক্র। বাসিন্দাদের অনেকেই ফের কিডনির কারবারিদের ফাঁদে পা বাড়িয়েছেন। শুধু জালিপাড়াই নয়, এলাকার একাধিক গ্রামের বাসিন্দাদের একাংশ কিডনি বিক্রির দালালদের ফাঁদে পা বাড়িয়েছেন। বিন্দোলের জালিপাড়া গ্রামের হতদরিদ্র বাসিন্দাদের অনেকেরই একটি করে কিডনি নেই। এরা বিভিন্ন সময়ে অভাব অনটনে মেয়ের বিয়ে দিতে এমনকি পরিবারের মুখে অন্ন জোগাতে অনেকেই এক-দু’লক্ষ টাকার বিনিময়ে একটি কিডনি বিক্রি করে দিয়েছেন। একটি দালালচক্র এখানে দীর্ঘদিন ধরে সক্রিয় ছিল। তারাই এই গ্রামের বাসিন্দাদের এক-দুই লক্ষ টাকার বিনিময়ে ভিনরাজ্যের বিভিন্ন হাসপাতালে নিয়ে গিয়ে একটি করে কিডনি বিক্রি করে দিয়েছেন।

কিছুদিন প্রশাসনের কড়াকড়ি এবং নজরদারিতে কিডনি বিক্রির প্রবণতা খানিকটা কমে গেলেও করোনার প্রথম ঢেউ শুরু হওয়ার পর থেকে ফের দালালচক্র সক্রিয় হয়ে উঠেছে। যদিও জালিপাড়া গ্রামের অনেকেই জানিয়েছেন, অভাবের কারণেই তাঁদের কিডনি বিক্রি করতে হচ্ছে। রায়গঞ্জ ব্লক তৃণমূল সভাপতি তথা রায়গঞ্জ পঞ্চায়েত সমিতির সহ সভাপতি মানস ঘোষ জানান, সম্প্রতি কিডনি সংক্রান্ত কিছু অভিযোগ এসেছে। বিষয়টি পঞ্চায়েত প্রধানদের দেখতে বলা হয়েছে। চাল, আটা সহ নানান সামগ্রী রাজ্য সরকারের তরফে দেওয়া হচ্ছে। তারপরেও কেন এমন ঘটনা, তা তদন্ত করে দেখা হচ্ছে বলে জানান তিনি। তৃণমূলের স্থানীয় নেতা প্রশান্ত জালি জানান, কেউ যদি চুপিসারে কিডনি বিক্রি করতে যান তাহলে তাঁদের কিছু করার নেই। আগের তুলনায় কিডনি বিক্রির প্রবণতা কমেছে বলে দাবি করেন তিনি। এবিষয়ে যদিও প্রশাসনের কোনও কর্তাই মন্তব্য় করতে চাননি।

- Advertisement -