নূন্যতম পরিকাঠামো ছাড়াই রমরমা কিন্ডারগার্টেন স্কুলের

255

প্রণব সূত্রধর, আলিপুরদুয়ার : আলিপুরদুয়ার শহর ও শহর সংলগ্ন অঞ্চলে নূন্যতম পরিকাঠামো ছাড়াই মুড়িমুড়কির মতো একাধিক কিন্ডারগার্টেন  স্কুল গড়ে  উঠেছে বলে অভিযোগ। পর্যাপ্ত পরিকাঠামো ছাড়াই এই স্কুলগুলি গড়ে উঠলেও এই স্কুলগুলিতে প্রচুর পড়ুয়া রয়েছে। পরিকাঠামোব অভাবে পড়ুয়ারা বিপদে পড়তে পারে বলে আশঙ্কা ছড়িয়েছে। নিখিলবঙ্গ প্রাথমিক শিক্ষক সমিতির আলিপুরদুয়ার জেলার সভাপতি কস্তুরী মৈত্র বলেন, পর্যাপ্ত পরিকাঠামো না থাকলেও এই স্কুলগুলিতে পড়ুয়াদের সংখ্যার দিনদিন বাড়ছে। খুব গরিব পরিবারগুলিও এখন তাদের ছেলেমেয়েদের এই স্কুলগুলিতে পড়াতে চায়। জেলা প্রাথমিক বিদ্যালয় সংসদের চেয়ারম্যান অনুপ চক্রবর্তী বলেন, এই স্কুলগুলিতে অবশ্যই পর্যাপ্ত পরিকাঠামো থাকা প্রয়োজন। বিষয়টি খতিয়ে দেখে পদক্ষেপ করা হবে বলে জেলা প্রাথমিক বিদ্যালয় পরিদর্শক কেশবচন্দ্র সরকার জানান।

সরকারি নির্দেশিকা অনুযায়ী প্রতিটি স্কুলে খেলার মাঠ, ৪০০ বর্গফুটের শ্রেণিকক্ষ, ছাত্র ও ছাত্রীদের জন্য আলাদা শৌচালয়, অগ্নিনির্বাপণ ব্যবস্থা, পরিস্রুত পানীয় জল, গ্রন্থাগারের মতো ব্যবস্থা থাকা প্রয়োজন। অথচ আলিপুরদুয়ার শহর ও শহর সংলগ্ন অঞ্চলে বহু কিন্ডারগার্টেন স্কুল এ সমস্ত আবশ্যিক পরিকাঠামো ছাড়াই গড়ে উঠেছে বলে অভিযোগ। এই পরিকাঠামোয় পড়ুয়াদের ভর্তি করা কতটা নিরাপদ তা নিয়ে প্রশ্ন রয়েছে। সংশ্লিষ্ট মহলের বক্তব্য, পাঁচবছর বয়স না হলে সরকারি স্কুলগুলিতে ভর্তি করা যায় না। কিন্তু বেসরকারি স্কুলগুলি তিনবছর বয়সেই ভর্তি নেওয়ায় অনেকেই এই স্কুলগুলিতে তাঁদের ছেলেমেয়েদের ভর্তি করছেন। সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে শিক্ষক অমর পাল বলেন, সরকারি স্কুলে শিক্ষকের অভাব রয়েছে। এজন্য সমস্যা হচ্ছে। অধ্যাপক তথা সাহিত্যিক অর্ণব সেন বলেন, ইংরেজি ভাষার প্রতি অনেকে গুরুত্ব দেওয়ার ফলে এই স্কুলগুলির এভাবে রমরমা বাড়ছে। অভিভাবক শংকর পাল বলেন, বর্তমান ইংরেজির কদর বাড়ছে। তাই সমাজের সবাই ছেলেমেয়েদের এই স্কুলেই ভর্তি করাতে চাইছেন। অভিভাবক রত্না সরকার বলেন,  ইংরেজিমাধ্যমে না পড়লে আজকাল সহজে চাকরি পাওয়া যায় না। তাই এই স্কুলগুলিতে ছেলেমেয়েদের ভর্তি না করলে উপায় নেই। অন্যদিকে, তাঁরা যতটা পারেন উপযুক্ত পরিকাঠামোতেই পড়াশোনার চেষ্টা চালাচ্ছেন বলে বেসরকারি এই কিন্ডারগার্টেন স্কুলগুলির তরফে পরিতোষ রায়, শুভ ঘোষ, রেবা চক্রবর্তী প্রমুখ জানান।

- Advertisement -