সুযোগ কাজে লাগিয়ে বাজিমাৎ রাহুলের

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা : তিনি চ্যালেঞ্জ নিতে ভালোবাসেন। লড়াই করতে জানেন। আর জানেন, ভুল থেকে শিক্ষা নিতে।

২০১৯ সালে শেষ টেস্ট খেলেছিলেন ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিরুদ্ধে। তারপর থেকে লোকেশ রাহুলের জায়গা রিজার্ভ বেঞ্চ। উপরি হিসেবে চোটের ধাক্কাও ছিল। গত ডিসেম্বরের অস্ট্রেলিয়া সফর থেকে চোটের কারণে মাঝপথে দেশে ফিরতে হয়েছিল তাঁকে। তার মাঝেও ভুল থেকে শিক্ষা নিয়ে সামনে তাকানো ও সুযোগ কাজে লাগানোর জেদটা ছাড়েননি তিনি। বরং মনের জেদটা আরও বেড়ে গিয়েছিল লোকেশের। যার প্রমাণ, ট্রেন্ট ব্রিজে ৮৪ রানের ইনিংস।

- Advertisement -

এই ইনিংস টিম ইন্ডিয়াকে সিরিজের প্রথম টেস্টে শক্ত ভিতের উপর দাঁড় করিয়ে দিয়েছে। জেমস অ্যান্ডারসন, স্টুয়ার্ট ব্রডদের বিরুদ্ধে অসাধারণ ব্যাটিংয়ের পর ভার্চুয়াল সাংবাদিক সম্মেলনে হাজির হয়ে রাহুল বলেন, যখনই সুযোগ পেয়েছি, দলের জন্য নিজেকে উজাড় করে দিয়েছি। গত দুই বছর মাঠের বাইরে থেকে প্রবলভাবে একটা শিক্ষা পেয়েছি। সেটা হল, হাল ছাড়া যাবে না। আর সুযোগ পেলেই কাজে লাগাতে হবে।

মায়াঙ্ক আগরওয়াল মাথায় চোট না পেলে হয়তো ট্রেন্ট ব্রিজে খেলা হত না রাহুলের। তাছাড়া ভারতীয় দলে কখনই তাঁর নির্দিষ্ট ব্যাটিং অর্ডার তৈরি হয়নি। ওপেন করার পাশে মিডল অর্ডারেও খেলেছেন। কীভাবে এই চ্যালেঞ্জ সামলান? প্রশ্ন শেষ হওয়া মাত্র রাহুলের জবাব, ছোটোবেলা থেকেই চ্যালেঞ্জ নিতে ভালোবাসি আমি। আর ওপেন করাটাও আমার জন্য নতুন নয়। হয়তো নির্দিষ্টভাবে ওপেনার নই। কিন্তু বহু ম্যাচে অতীতে ওপেন করেছি আমি। রাহুলের সঙ্গে অ্যান্ডারসনের বাইশ গজের লড়াই ক্রিকেটপ্রেমীদের মুগ্ধ করেছে।