জানা-অজানায় ঘূর্ণিঝড় যশ

270

উত্তরবঙ্গ সংবাদ নিউজ ডেস্ক: আমপানের স্মৃতি উসকে ধেয়ে আসছে ঘূর্ণিঝড় ‘যশ’। আগামী সপ্তাহেই বাংলায় আছড়ে পড়তে পারে এই ঘূর্ণিঝড়। আবহাওয়া দপ্তর সূত্রে খবর, উত্তর আন্দামান সাগরে যে নিম্নচাপ রয়েছে, তা ঘূর্ণিঝড়ের রূপ নেবে আগামী ২২ মে। এরপর ক্রমশ তা স্থলভাগের দিকে ধেয়ে আসবে। সবশেষে ২৬ মে সকালে পশ্চিমবঙ্গ এবং ওড়িশা উপকূলে আছড়ে পড়তে পারে।

ঘূর্ণিঝড় যশ। এর অর্থ হতাশা বা দুঃখ। শব্দটি এসেছে পারসি ভাষা থেকে। জানা গিয়েছে, ওমানের তরফে এই নাম রাখা হয়েছে ঘূর্ণিঝড়টির। ভারত, ইরান, মালদ্বীপ, বাংলাদেশ, মায়ানমার, ওমান, পাকিস্তান সহ ১৩টি দেশ নিয়ে গঠিত কমিটি এই ঝড়ের নামকরণ করেছে।

- Advertisement -

ঝড়ের নামকরণের নিয়ম তৈরি হয় ২০০০ সালে। তাতে ওয়ার্ল্ড মেটেরোলজিক্যাল অর্গানাইজেশন ও ইউনাইডেট নেশনস ইকোনমিক অ্যান্ড সোশ্যাল কমিশন ফর এশিয়ার সদস্য দেশগুলি ঘূর্ণিঝড়ের নামকরণ শুরু করে। আন্তর্জাতিক নিয়ম অনুসারে, যে মহাসাগরে ঘূর্ণিঝড় তৈরি হয়, তার অববাহিকায় থাকা দেশগুলি ঝড়়ের নাম দিয়ে থাকে। এক্ষেত্রে পৃথিবীতে মোট ১১টি সংস্থা রয়েছে। যশের পরবর্তী যে ঘূর্ণিঝড়গুলির নাম স্থির হয়েছে সেগুলি হল গুলাব, সাহিন, জাওয়াদ, অশনি, সীতরাং, মানদৌস, মোচা।