সতীর্থদের মানসিকতা নিয়ে প্রশ্ন কোহলির

চেন্নাই : মর্মাহত। ব্যথিত। একইসঙ্গে প্রবল চাপেও।

নেপথ্যে ২২৭ রানের বিরাট হার। আজিঙ্কা রাহানের সঙ্গে নেতৃত্বের তুলনাও।

- Advertisement -

জটিল পরিস্থিতিকে আরও ঘোরাল করে তুলে ভারত অধিনায়ক বিরাট কোহলি ম্যাচ হারের পর ভার্চুয়াল সাংবাদিক সম্মেলনে হাজির হয়ে সতীর্থদের মানসিকতা নিয়ে প্রশ্ন তুলে দিলেন। শুধু তাই নয়, ভারত অধিনায়কের কথায় বৈপরীত্যের সুরও পাওয়া গেল ভালোরকম।

দলের দুই পেসার জশপ্রীত বুমরাহ-ইশান্ত শর্মা এবং সবচেয়ে অভিজ্ঞ স্পিনার রবিচন্দ্রন অশ্বীনের প্রশংসা শোনা গিয়েছে কোহলির গলায়। পাশাপাশি নাদিম-সুন্দররা প্রভাব বিস্তার করতে ব্যর্থ, সেকথাও মেনে নিয়েছেন ভারত অধিনায়ক। অথচ, কুলদীপ যাদবকে বসিয়ে রেখে শাহবাজ নাদিমকে খেলানো নিয়ে তাঁর কোনও অনুশোচনা নেই বলে জানিয়েছেন তিনি। ভারত অধিনায়কের কথায়, ম্যাচের শুরুর দিকে আমরা বিপক্ষের উপর চাপ তৈরিতে ব্যর্থ হয়েছি। জোরে বোলাররা ও অশ্বীন চেষ্টা করলেও পার্টটাইম বোলাররা প্রভাব বিস্তারে ব্যর্থ হয়েছে। ফলে ইংল্যান্ডের প্রথম ইনিংসের বড় স্কোরের মাধ্যমেই খেলার রাশ আমাদের হাত থেকে বেরিযে গিয়েছিল। কেন অনভিজ্ঞ শাহজাব নাদিম? জবাবে কোহলি বলেন, অশ্বীন-সুন্দর, দুজন অফস্পিনার তো খেলতই। সঙ্গে কুলদীপ থাকলে স্পিন বোলিং আক্রমণ অনেকটা একরকম হয়ে যেত। তাই পরিস্থিতি ও কম্বিনেশনের কথা বিবেচনা করে বৈচিত্রের কারণেই শাহবাজকে খেলানো হয়। এই সিদ্ধান্ত নিয়ে কোনও অনুশোচনা নেই আমাদের।

চিপকের ফ্ল্যাট বাইশ গজে টস হার। ইংল্যান্ড ইনিংসে ভারতীয় বোলারদের প্রভাববিস্তার করতে না পারা। এরপরই ভারত অধিনায়ক টেনে এনেছেন সতীর্থদের মানসিকতার প্রসঙ্গ। বিরাট বলেন, আমাদের মধ্যে খুনে মানসিকতার অভাব ছিল ভালোরকম। প্রথম ইনিংসে একটা সময় আমাদের কাঁধ ঝুলে গিয়েছিল। এটা কখনই কাম্য নয়। এমন নেতিবাচক মানসিকতাও চেন্নাই টেস্ট হারের অন্যতম কারণ। ভারতীয় ক্রিকেটের সাম্প্রতিক ইতিহাস বলছে, ২০১৭ সালে ঘরের মাঠে অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধেই হোক বা স্যর ডনের দেশে গিয়ে অ্যাডিলেড বিপর্যয়ের পরই হোক, টিম ইন্ডিয়া ঘুরে দাঁড়িয়েছে। সিরিজও জিতেছে। দুর্দান্ত প্রস্তুতি নিয়ে ভারত সফরে হাজির হওয়া জো রুটদের বিরুদ্ধে এবার কি হবে? জবাবে কোহলি বলছেন, সিরিজ এখনও শেষ হয়ে যায়নি। আমরা কঠিন পরিস্থিতির মধ্যে আগেও ঘুরে দাঁড়িয়েছি। আবারও কামব্যাক করব। কিন্তু তার আগে নিজেদের ব্যর্থতার বিশ্লেষণ প্রয়োজন।

সিরিজে টিম ইন্ডিয়ার প্রত্যাবর্তনের জন্য অপেক্ষা ছাড়া উপায় নেই আপাতত। কিন্তু তার আগে কোহলি দলের ব্যাটিং নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন আজ। টপঅর্ডারকে আরও দায়িত্ব নেওয়ার আহ্বান জানিয়ে ভারত অধিনায়ক বলেন, প্রথম ইনিংসে আমাদের মিডলঅর্ডার চেষ্টা করলেও টপঅর্ডার হতাশ করেছে। আমাদের আরও বেশি করে সাফল্যের লক্ষ্যে পেশাদারি মানসিকতা দেখাতে হবে। সঠিকভাবে এই মানসিকতা দেখিয়ে ইংল্যান্ড সিরিজে লিড পেয়ে গিয়েছে। শ্রীলঙ্কার বিরুদ্ধে সিরিজ জিতে ভারতে এসেছে ইংল্যান্ড। ফলে এখানকার পরিবেশ ও উইকেট সম্পর্কে ভালোরকম ধারণা ও সঠিক প্রস্তুতি নিয়ে জো রুটরা এসেছেন, প্রথম টেস্টের পর তা প্রমাণিত। কোহলির গলায় অবশ্য অন্য কথা শোনা যাচ্ছে। ভারত অধিনায়কের মতে, আপনাদের মনে হচ্ছে, ইংল্যান্ড প্রস্তুত হয়ে এসেছে। কিন্তু আমাদের পরিবেশ ও মাঠে আমরা তৈরি নই, এমন ভাবনাও সঠিক নয়। সিরিজের এখনও অনেক বাকি।