ভোট পরবর্তী হিংসা মামলায় হাইকোর্টে জোর ধাক্কা রাজ্যের

140

কলকাতা: ভোট পরবর্তী হিংসা মামলায় ফের কলকাতা হাইকোর্টে ভর্ৎসিত রাজ্য। গত ১৮ মে এই সংক্রান্ত মামলায় রাজ্য সরকারের ভূমিকার তীব্র সমালোচনা করে কলকাতা হাইকোর্ট জাতীয় মানবাধিকার কমিশনের চেয়ারম্যানের নেতৃত্বে একটি বিশেষ কমিটি গঠনের নির্দেশ দেয়। বলা হয় যাবতীয় অভিযোগ খতিয়ে দেখবে এই কমিটিই। রাজ্য সরকার ও রাজ্য মানবাধিকার কমিশন সাহায্য করবে। সেই কমিটি ৩০ জুনের মধ্যে রিপোর্ট দেবে। এতে অসহযোগিতার অভিযোগ উঠলে তা আদালত অবমাননার শামিল হবে বলেও জানিয়ে দেয় উচ্চ আদালত।

কিন্তু প্রথম থেকেই ভোট পরবর্তী হিংসার অভিযোগ সেভাবে মানতে চায়নি রাজ্য। বরং তারা বারবার জানিয়েছে যখন আইনশৃঙ্খলা নির্বাচন কমিশনের অধীনে ছিল তখনই হিংসার ঘটনা ঘটেছে। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় মুখ্যমন্ত্রীর দায়িত্ব নেওয়ার পর থেকে হিংসার ঘটনা কমেছে। এহেন অবস্থান থেকে হাইকোর্টের এই কড়া নির্দেশ মানতে চায়নি রাজ্য। তারা এই নির্দেশ পুনর্বিবেচনার আর্জি জানায়। সেই মতো এদিন প্রধান বিচারপতি রাজেশ বিন্দলের নেতৃত্বে পাঁচ বিচারপতির বেঞ্চে শুনানি ছিল। কিন্তু বেঞ্চ রাজ্যের আর্জি মানতে চায়নি। এদিন মামলার শুনানির শুরুতেই বিচারপতিরা স্পষ্ট জানান, এর আগে রাজ্যে ভোট পরবর্তী হিংসা মামলায় ঘরছাড়াদের ঘরে ফেরানো নিয়ে রাজ্য সরকারকে কাজের সুযোগ দেওয়া হয়েছিল। তার জন্য রাজ্য মানবাধিকার কমিশনের নেতৃত্বে একটি কমিটিও তৈরি হয়েছিল। কিন্তু দেখা গিয়েছে, ঘরে ফেরানো তো হয়ইনি, এমনকি এই সংক্রান্ত কোনও অভিযোগই সেভাবে খতিয়ে দেখা হয়নি। রাজ্য সরকারের এই উদাসীনতায় ক্ষুব্ধ উচ্চ আদালত। তাই এসবের নিষ্পত্তি করতে কার্যত বাধ্য হয়েই জাতীয় মানবাধিকার কমিশনকে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। আর সেই নির্দেশই বহাল থাকবে। ফলে এই সংক্রান্ত বিষয়ে এবার কাজ শুরু করবে জাতীয় মানবাধিকার কমিশনের নেতৃত্বাধীন কমিটিই।

- Advertisement -