বিরাটদের দর্পচূর্ণের ছক কষছে নাইটরা

আবু ধাবি : সংযম। প্রতিজ্ঞা। আত্মবিশ্বাস। ধৈর্য। সংকল্প।

চুম্বকে এই হল কলকাতা নাইট রাইডার্স। তীব্র লড়াইয়ে পর এসেছে প্লে-অফের ছাড়পত্র। দমবন্ধ করা পরিবেশে বদল হয়েছে। লক্ষ্যপূরণের প্রাথমিক ধাপটা পার করা গিয়েছে। উৎসব স্থগিত রয়েছে। কারণ, এখনও অনেক পথ চলার বাকি।

- Advertisement -

সোমবার মহাষষ্ঠীর সন্ধ্যায় বিরাট কোহলির রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালোরের বিরুদ্ধে এলিমিনেটরের ম্যাচ নাইটদের। হার মানেই যাবতীয় লড়াইয়ে ইতি। থাকবে না আর কোনও সুযোগ। অপেক্ষা ২০২২ সালের আইপিএলের। জিতলে ফাইনালের লক্ষ্যে নাইটরা আরও একটা ম্যাচ পাবে যাবে ফিয়ারলেস ক্রিকেট প্রদর্শনের জন্য। এমন পরিস্থিতির মধ্যে গতকালের ছুটি শেষে আজ নয়া উদ্যমে ছোটা শুরু করেছে কেকেআর। কোহলিদের বিরুদ্ধে ম্যাচের আগে সুখবর হিসেবে আজ নতুনভাবে সামনে এসেছে আন্দ্রে রাসেলের নাম। হ্যামস্ট্রিংয়ে চোট সারিয়ে তিনি পুরো ফিট বলে খবর। গত কয়েকদিন নেটে ব্যাট করলেও পুরোদমে বল করছিলেন না দ্রে রাস। আজ বিকেলে আবু ধাবির শেখ জায়ে স্টেডিয়ামের অনুশীলন ম্যাচে পুরো রানআপে বল করতে দেখা গিয়েছে ক্যারিবিয়ান কিংকে। পাশাপাশি আসিবির দর্পচূর্ণ করার নীল নকশা তৈরিও শুরু হয়েছে নাইটদের অন্দরে। কোচ ব্রেন্ডন ম্যাককুলাম তাঁর নাইটদের বুঝিয়ে দিয়েছেন, দল কী চাইছে।

আইপিএলের দ্বিতীয় পর্বে চমকপ্রদ প্রত্যাবর্তনের শুরুটা আরসিবির বিরুদ্ধেই হয়েছিল নাইটদের। ২০ সেপ্টেম্বরের সেই ম্যাচ এখন ইতিহাস। মাঝের সময়ে দুই দলই নিজেদের অনেক বদলেছে। যার প্রমাণ, গত রাতে লিগ টেবিলের এক নম্বর দল দিল্লি ক্যাপিটালসের বিরুদ্ধে আরসিবির রোমহর্ষক জয়। শেষ বলে ছক্কা মেরে দলকে জিতিয়ে শ্রীকর ভরত এখন আরবিসিবির অন্দরে জাভেদ মিয়াঁদাদ তকমা পেয়েছেন সতীর্থদের থেকে। শুধু ভরতই নন, গ্লেন ম্যাক্সওয়েল, এবি ডিভিলিয়ার্স, হর্ষল প্যাটেল, দেবদত্ত পাড়িক্কালদের ধারাবাহিকতা, ছন্দ নাইটদের রক্তচাপ বাড়িয়ে দেওয়ার জন্য যথেষ্ট।