প্রবল বর্ষণে জলমগ্ন কলকাতা, বাড়ির একাংশ ভেঙে গুরুতর আহত ১

133

কলকাতা: প্রবল বর্ষণের জেরে কলকাতা ও আশেপাশের বিস্তীর্ণ অঞ্চল জলমগ্ন হয়ে আছে। যার জেরে বিপর্যস্ত হয়েছে যানবাহন পরিষেবা। উত্তর কলকাতার গিরিশ পার্ক থানা এলাকার একটি শতাব্দীপ্রাচীন বাড়ির একাংশ ভেঙে গুরুতর আহত হয়েছেন এক ব্যক্তি। তাকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

জানা গিয়েছে, বুধবার রাত থেকে লাগাতার বৃষ্টির জেরে রাতে হঠাৎই হুড়মুড়িয়ে ভেঙে পড়ে কৈলাস কবিরাজ লেনের একটি বাড়ির একাংশ। শতাব্দীপ্রাচীন ওই বাড়িটি বিপজ্জনক বলে কলকাতা পৌরসভার তরফে নোটিশ টাঙানো হয়েছিল। তা সত্ত্বেও বাড়িটি ছেড়ে চলে যান নি সেখানকার বাসিন্দারা। বেশ কিছুদিন আগে ওই বাড়িটির একতলা বসে গিয়েছিল। তার মধ্যেই বসবাস করছিল একাধিক পরিবার।

- Advertisement -

গতকাল রাতে বাড়িটির একাংশ ভেঙে পড়লে ওই বাড়ির তিনতলার বাসিন্দা এক ব্যক্তি চাপা পড়ে যায়। আশঙ্কাজনক অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে মাড়োয়াড়ি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। শুধু তাই নয় ওই বাড়িটি ভেঙে পড়ার জেরে আশপাশের বাড়ির বাসিন্দাদের অসুবিধার সম্মুখীন হতে হয়েছে। তারা ঘর থেকে বের হতে পারছেন না, বাইরে থেকে কেউ ঘরগুলোতে ঢুকতে পারছেন না। সংকীর্ণ রাস্তা হওয়ার জেরে কলকাতা পুরসভার কর্মীদেরও বাড়িটির ভেঙে পড়া অংশ সেখান থেকে সরাতে ব্যাপক সমস্যার মধ্যে পড়তে হচ্ছে বলে জানা গিয়েছে।

গতকাল রাত থেকে যে প্রবল বর্ষণ শুরু হয়েছে তা আজও অব্যাহত। এর জেরে উত্তর-মধ্য-দক্ষিণ কলকাতা ও তার আশপাশের বিস্তীর্ণ অঞ্চল জলমগ্ন হয়ে গিয়েছে। কোথাও বা এক কোমর কোথাও বা এক হাঁটু জল জমে আছে। ফলে কাজের দিনে রাস্তাঘাটে যান পরিষেবা নেই বললেই চলে। এর জেরে অসুবিধার সম্মুখীন হতে হয়েছে নিত্যযাত্রীদের। বিশেষ করে দুর্ভোগের মধ্যে পড়তে হয়েছে বেহালা, তারাতলা, বন্দর এলাকা, এজেসি বোস রোড, পার্ক সার্কাস, ঠনঠনিয়া, আমহার্স্ট্রিট সহ বহু এলাকার মানুষদের। বিশেষ করে ঠনঠনিয়া এলাকায় কোথাও এক কোমড় আবার কোথাও এক বুক সমান জল জমে আছে। পুরসভার কর্মীরা জল নামানোর জন্য আপ্রাণ চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন বলে জানা গিয়েছে।