রুটদের টেক্কা দিতে কুলদীপের ভরসা লায়োনের পরামর্শ

চেন্নাই : সামনে প্রতিপক্ষ ইংল্যান্ড। কিন্তু মাথায় অস্ট্রেলিয়া থেকে পাওয়া পরামর্শ!

স্যার ডনের দেশে রাহানের ভারতের ঐতিহাসিক টেস্ট জয়ের সিরিজে কোনও ম্যাচে খেলেননি কুলদীপ যাদব। কিন্তু সেই সিরিজ থেকেই তিনি পেয়েছেন জো রুট বধের টোটকা। কীভাবে ইংল্যান্ড অধিনায়কের বিরুদ্ধে বল করতে হবে, কেমন জায়গায় ফিল্ডার রাখতে হবে এমন সব মহার্ঘ পরামর্শ কুলদীপকে দিয়েছিলেন নাথান লায়োন। সেই পরামর্শ মেনেই রুটকে প্যাভিলিয়ানে ফিরিয়ে টিম ইন্ডিয়াকে টেস্ট জেতানোর স্বপ্নে বুঁদ চায়ানাম্যান।

- Advertisement -

২০১৮-১৯ সালে কোহলির ভারত অস্ট্রেলিয়ায় গিয়েছিল। সেই সিরিজের শেষ টেস্ট ছিল সিডনিতে। এখনও পর্যন্ত ৬টি টেস্ট খেলা কুলদীপ সেখানেই তাঁর শেষ টেস্ট খেলেছিলেন। পাঁচটি উইকেটও নিয়েছিলেন। কিন্তু তারপর থেকে টেস্ট দলের প্রথম একাদশের বাইরে তিনি। শুক্রবার থেকে চিপকে শুরু হতে চলা ইংল্যান্ড সিরিজের প্রথম টেস্টে চায়নাম্যান দলে থাকতে পারেন বলে খবর। তার আগে কুলদীপ লায়োনের থেকে রুট বধের পরামর্শ পাওয়ার কথা জানিয়ে বলেন, অশ্বীন ভাইয়ের সঙ্গে আমার বোলিং থেকে শুরু করে নানা ব্যাপারে নিয়মিত কথা হয়। পরামর্শও পাই। তবে শেষ অস্ট্রেলিয়া সফরে আমি নাথান লায়োনের সঙ্গেও বোলিং নিয়ে অনেক কথা বলেছি। পরামর্শও পেয়েছি। যার মধ্যে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ হল, রুটকে কোন লাইনে বল করা উচিত, আমায় বলেছে লায়োন।

অতীতে কিংবদন্তি শেন ওয়ার্নের পরামর্শ পেয়েছেন কুলদীপ। প্রাক্তন ভারত অধিনায়ক অনিল কুম্বলে জাতীয় দলের কোচ থাকার সময় তাঁকে বোলিং নিয়ে বিস্তর পরামর্শ দিয়েছিলেন। সবই মাথায় রয়েছে চায়নাম্যানের। সঙ্গে যোগ হয়েছে রুটকে বল করা নিয়ে লায়োনের পরামর্শ। চায়নাম্যান বলেছেন, লায়োন কীভাবে এত সফল, আমি ওর থেকে জানতে চেয়েছিলাম। জবাবে ও বলে, কঠিন পরিশ্রম ও নির্দিষ্ট লাইনে বল করার সময় বৈচিত্র প্রয়োগের কথা। বলের গতি বাড়ানোর কথাও আমায় বলেছে ও। সঙ্গে রুটকে বল করার সময় আদর্শ লাইন ও ফিল্ডারদের পজিশন কেমন হওয়া দরকার, সেকথাও বলেছে। লায়োনের পরামর্শ মাথায় রেখে স্ট্র্যাটেজি করছি আমি।
সম্প্রতি সময়টা ভালো যাচ্ছে না কুলদীপের। আইপিএলে সাফল্য পাননি। কেকেআরের প্রথম একাদশ থেকেও বাদ পড়েছিলেন। সাদা বলের ক্রিকেটে টিম ইন্ডিয়ার সংসারেও তিনি এখন নিয়মিত নন। তাই ঘরের মাঠে ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে সিরিজের আগে একটু বেশি সতর্ক তিনি। লক্ষ্যে অবিচলও। কুলদীপ বলেন, আমার সময়টা ভালো যাচ্ছে না। কিন্তু এমন অবস্থা সবার কেরিয়ারেই আসে। চাপ তৈরি হয়। আর সেই চাপের সঙ্গে মানিয়ে নিয়ে চাপ কাটাতেও হয়। সেটাই করছি এখন আমি।