দেবীজ্ঞানে নয় কুমারীর পুজো বর্ধমানের সর্বমঙ্গলা মন্দিরে

103

বর্ধমান: রাজ আমলের রীতি মেনে বৃহস্পতিবার মহা নবমীতে দেবীজ্ঞানে নয় কুমারীর পুজো হল বর্ধমানের সর্বমঙ্গলা মন্দিরে। বর্ধমানের বাহির সর্বমঙ্গলা অঞ্চলে বাস করা চুনুরীদের কাছ থেকে পাওয়া কষ্টি পাথরের অষ্টাদশভূজা দেবী মূর্তি বর্ধমানবাসীর অধিষ্ঠাত্রী দেবী। ১৭৪০ সালে রাজা কীর্তি চাঁদ এই দেবী মূর্তিকে প্রতিষ্ঠা করেন। সেই থেকে সর্বমঙ্গলা নামেই দেবী পূজিত হয়ে আসছেন। পরবর্তীকালে মহতাব চাঁদ দেবীর মন্দির তৈরি করেন। রাজা নেই, রাজ আমলও আর নেই। তা বলে দেবীর বন্দনায় কোনও খামতি পড়েনি। রাজ আমলের রীতি মেনে এখনও পুজোর দিনগুলোয় নিষ্ঠার সঙ্গে সর্বমঙ্গলা মায়ের পুজো হয়ে আসছে। রাজ আমলের অবসান হবার পর তৎকালীন মহারাজা উদয় চাঁদ ১৯৫৯ খ্রিস্টাব্দে একটি ট্রাস্টি বোর্ড গঠন করেন। সেই ট্রাস্টি বোর্ডের হাতেই তিনি প্রাচীন মন্দিরটি পরিচালনার দায়িত্ব দেন ও তারপর থেকে এখনও পর্যন্ত সেই ট্রাস্টি বোর্ডই এই মন্দিরের পুজো অর্চনার যাবতীয় দায়দায়িত্ব সামলে আসছে।