দলে গ্রিজুর গুরুত্বে ইর্ষা-রাগ এমবাপের

প্যারিস : শুধু অলিভার জিরুই নয়, কিলিয়ান এমবাপের সমস্যা রয়েছে আঁতোয়া গ্রিজম্যানের সঙ্গেও।

ইউরোর ফেভারিট থেকে ফ্রান্সকে একধাক্কায় মাটিতে নামিয়েছে সুইজারল্যান্ড। এরপর থেকেই শুরু হয়েছে দলের হারের ময়নাতদন্ত। তাতেই বিশ্ব চ্যাম্পিয়নদের সংসার নিয়ে নতুন নতুন তথ্য সামনে আসছে। প্রতিযোগিতা শুরুর আগেই জিরুর সঙ্গে এমবাপের ঝামেলার কথা আগেই প্রকাশ পেয়েছে। এবার জানা গিয়েছে গ্রিজম্যানের সঙ্গে ২২ বছরের তারকা ফরোয়ার্ডের ঠাণ্ডা লড়াইয়ে কথা। এমবাপের ফরাসি সংবাদমাধ্যমের দাবি, সিনিয়র হিসেবে দলে বেশ গুরুত্ব রয়েছে গ্রিজুর। ২০১৮ বিশ্বকাপ জয়ে বড় ভূমিকা নেওয়ার পর তা আরও বেড়েছে। যদিও তা সহ্য করতে পারেন না এমবাপে। এমনকি তাঁর ঔদ্ধত্যে অবাক হুগো লরিস, স্টিম মানদান্দার মতো সিনিয়র তারকারাও।

- Advertisement -

সূত্রের খবর, বিভিন্ন ইস্যুতে গ্রিজম্যান ও এমবাপেকে ভিন্ন মেরুতে পাওয়া গিয়েছে। এরমধ্যে সাম্প্রতিক হল করিম বেঞ্জিমার প্রত্যাবর্তন। ইউরো শুরুর আগে হঠাৎ করেই বেঞ্জিমাকে জাতীয় দলে ফেরান কোচ দিদিয়ের দেশঁ। রিয়াল মাদ্রিদের স্ট্রাইকারকে ৬ বছর পর ফিরিয়ে আনার বিপক্ষে ছিলেন বার্সেলোনার তারকা। কিন্তু বেঞ্জিমা ফেরার খবরে বেশ খুশি হন এমবাপে। এরপর জিরু-ইস্যু গৃহযুদ্ধের আগুনে ঘি ঢালে। জিরু সতীর্থদের কাছ থেকে বল না পাওয়ার অভিযোগ জানানোয় ক্ষুব্ধ হন এমবাপে। তাঁর উদ্দেশ্য করে এই অভিযোগ তোলা হয়েছে দাবি জানিয়ে সাংবাদিক সম্মেলন করতে চেয়েছিলেন এমবাপে। জিরু বহুবার কথাটা সাধারণভাবে গোটা দলের উদ্দেশ্য করা হয়েছে বললেও তা মানতে চাননি তিনি।

প্রি-কোয়ার্টার ফাইনালে টাইব্রেকার শট মিস করার পর থেকেই বিতর্কের কেন্দ্রে এমবাপে। এবার অবশ্য উঠে এসেছে পল পোগবার নামও। সংবাদমাধ্যমের দাবি, সুইসদের বিরুদ্ধে খেলার সময় মাঠেই একাধিকবার একে অপরকে গালাগাল করেন পোগবা ও অ্যাদ্রিয়ান র‌্যাবিও। ম্যাচ শেষে গ্যালারিতে ঝামেলায় জড়ায় দুই ফুটবলারের পরিবার। এরমধ্যেই অধিনায়ক রাফায়েল ভারানের সঙ্গে সাইডব্যাক বেঞ্জামিন পাভার্ডের হোয়াটসঅ্যাপ মেসেজ প্রকাশ্যে এসেছে। সেখানে ভারানে লং বলের বিরুদ্ধে ডিফেন্ডিং নিয়ে অখুশি হওয়ার কথা বলেন। জবাবে পাভার্ড লেখেন, এটাও পোগবার দোষ। ও সঠিক সময়ে নেমে আসছে না। এরপর ভারানে জানান, তিনি পোগবার সঙ্গে কথা বলবেন।