উত্তরবঙ্গে কর্মীসংকটের জেরে আবগারি অভিযানে ধাক্কা

210

জ্যোতি সরকার, জলপাইগুড়ি : কর্মীসংকটে উত্তরবঙ্গের আট জেলায় আবগারি বিভাগের রাজস্ব আদায় বৃদ্ধি আশানুরূপ লক্ষ্যে পৌঁছোচ্ছে না। পাশাপাশি বেআইনি মদের কারবার পুরোপুরি বন্ধের কাজও করা সম্ভব হচ্ছে না। মালদা, উত্তর দিনাজপুর, দক্ষিণ দিনাজপুর, দার্জিলিং, কালিম্পং, জলপাইগুড়ি, আলিপুরদুয়ার এবং কোচবিহার জেলায় ৬৫ শতাংশ অফিসার এবং কনস্টেবলের পদ ফাঁকা পড়ে রয়েছে। উত্তরের প্রতিটি জেলা থেকে রাজ্য সরকার গড়ে বছরে ৩০০ কোটি টাকা রাজস্ব আদায় করে। শূন্যপদে আফিসার এবং কর্মী নিযোগ করা হলে নিশ্চিতভাবে রাজস্ব আদায়ে পরিমাণ বৃদ্ধি পাবে।

রাজ্যে ৪৬৫২টি কনস্টেবল পদের মধ্যে তিনহাজার পদই ফাঁকা। অ্যাসিস্ট্যান্ট সাব-ইনস্পেকটরের ১১৬৫ পদের মধ্যে রয়েছেন ৩০০ জন। ৭৭০ জন সাব-ইনস্পেকটরের মধ্যে রয়েছেন প্রায় ৪০০ জন। পরিস্থিতির চাপে কমার্শিয়াল ট্যাক্স দপ্তর থেকে অফিসার তুলে নিয়ে আবগারি দপ্তরের কাজে লাগিয়েছে রাজ্য সরকার। তিনহাজার কনস্টেবল পদে নিয়োগ প্রক্রিয়া শুরু করেছে রাজ্য। উত্তরবঙ্গের জলপাইগুড়ি, আলিপুরদুয়ার এবং কোচবিহার জেলায় বেআইনিভাবে ভুটানি মদ প্রচুর পরিমাণে ঢুকছে। কর্মীসংকটের কারণে এই বেআইনি ভুটানি মদের কারবার পুরোপুরি বন্ধ করা যায়নি। ভক্তিনগর এলাকায় বেআইনিভাবে জাল বিদেশি মদ তৈরির কারবার হচ্ছে। হাতেগোনা অফিসার এবং কর্মীকে নিয়ে আবগারি বিভাগের অফিসারদের অভিযান করতে হচ্ছে। সূত্রের খবর, দার্জিলিং জেলায় ৬৮ শতাংশ পদ ফাঁকা। কালিম্পংয়ে প্রায় ৭০ শতাংশ পদই ফাঁকা। কোচবিহার জেলায় ৫৮ শতাংশ পদই ফাঁকা। আলিপুরদুয়ারে ৫৫ শতাংশ, জলপাইগুড়ি জেলাতে ৬৫ শতাংশ, দক্ষিণ দিনাজপুরে ৬০ শতাংশ, উত্তর দিনাজপুরে ৬৫ শতাংশ ও  মালদা জেলাতে ৬০ শতাংশ পদই ফাঁকা।

উত্তরবঙ্গের জেলাগুলির মধ্যে মদে সবচেয়ে বেশি রাজস্ব আদায় হয় জলপাইগুড়ি জেলা থেকে। এই জেলায় বিগত একমাসে ৬ হাজার ৮০০ লিটার চোলাই মদ, ৪৫ হাজার ৩৫২ লিটার মদ তৈরির উপকরণ, ৭ হাজার লিটার ভুটানি মদ এবং ৭ হাজার লিটার দেশি মদ বাজেয়াপ্ত করা হয়েছে। বেআইনি মদের কারবারের সঙ্গে যুক্ত থাকার অভিযোগে ৪৫টি গাড়ি আটক করা হয়েছে। গ্রেফতার হয়েছে ১১৫ জন। নাগরাকাটা এলাকায় একটি নজরদারি কেন্দ্র স্থাপন করার প্রস্তাব জেলা আবগারি বিভাগ থেকে রাজ্য আবগারি বিভাগে পাঠানো হয়েছে। জলপাইগুড়ি জেলার ডেপুটি সুপারিন্টেন্ডেন্ট অফ এক্সাইজ রামপ্রসাদ হালদার জানিয়েছেন, চলতি আর্থিক বছরে জলপাইগুড়ি জেলায় আবগারি বিভাগের রাজস্ব আদায় হয়েছে অক্টোবর মাস পর্যন্ত ৩১০ কোটি ৬১ লক্ষ টাকা। গত বছরের থেকে ৩০ শতাংশ বৃদ্ধি পেয়েছে। তিনি স্বীকার করেন, শূন্যপদে কর্মী থাকলে বেশি রাজস্ব আদায় হত।