দাম নেই, ঢেঁড়শ খেতের পরিচর্যা বন্ধ করে দিয়েছেন চাষিরা

236

শ্রীবাস মন্ডল, ফুলবাড়ি: লকডাউনের জেরে এবছর ঢেঁড়শের দাম মিলছে না। যে কারণে খেতের পরিচর্যা বন্ধ করে দিয়েছেন মাথাভাঙ্গা-২ ব্লকের বড় শৌলমারি গ্রাম পঞ্চায়েতের বিভিন্ন এলাকার চাষিরা। ব্লক কৃষিদপ্তর সূত্রে জানা গিয়েছে, মাথাভাঙ্গা -২ ব্লকের মধ্যে সবচেয়ে বেশি ঢেঁড়শের চাষ হয় বড় শৌলমারি গ্রাম পঞ্চায়েত এলাকায়।

তারমধ্যে একটি উল্লেখযোগ্য এলাকা হল দক্ষিণ সিঙ্গিজানি। এখানে প্রতিবছর প্রচুর পরিমাণে ঢেঁড়শের চাষ হয়। এবছরও এলাকার বিঘার পর বিঘা জমিতে আগুরি ঢেঁড়শের চাষ করেছেন চাষিরা। কিন্তু এবছর লকডাউনের কারণে মরসুমের শুরু থেকেই ঢেঁড়শের দাম কম। আর বর্তমানে ঢেঁড়শের দাম একদম তলানিতে এসে ঠেকেছে। এদিকে চাহিদাও নেই। তাই গাছে ফল থাকলেও ঢেঁড়শ খেতের পরিচর্যা বন্ধ করে দিয়েছেন চাষিরা।

- Advertisement -

দাম নেই, ঢেঁড়শ খেতের পরিচর্যা বন্ধ করে দিয়েছেন চাষিরা| Uttarbanga Sambad | Latest Bengali News | বাংলা সংবাদ, বাংলা খবর | Live Breaking News North Bengal | COVID-19 Latest Report From Northbengal West Bengal India

দক্ষিণ সিঙ্গিজানি এলাকার রাজেশ মজুমদার, সাধন মজুমদার, দরিবশ ফুলবাড়ি এলাকার দীনেশচন্দ্র বর্মন, কুমুদ রঞ্জন মন্ডল প্রমুখ চাষিরা বলেন, ‘আগুরি ঢেঁড়শ চাষে খরচ ও ঝুঁকি অনেক বেশি। সবকিছু ঠিকঠাক থাকলে ঢেঁড়শের ভালো দাম পাওয়া যায়। লাভবান হন চাষিরা। কিন্তু এবছর ভালো ফসল ফলিয়েও ক্ষতির মুখে ঢেঁড়শ চাষিরা। লকডাউনের কারণে এবছর ঢেঁড়শের চাহিদা ও দাম একদম তলানিতে এসে ঠেকেছে। যে কারণে চাষিরা ঢেঁড়শ খেতের পরিচর্যা বন্ধ করে দিয়েছেন। কিছু এলাকায় খেতেই নষ্ট হয়ে যাচ্ছে ঢেঁড়শ।’

মাথাভাঙ্গা-২ ব্লকের সহ কৃষি অধিকর্তা মলয়কুমার মন্ডল বলেন, ব্লকের মধ্যে বড় শৌলমারি গ্রাম পঞ্চায়েত এলাকায় সবচেয়ে বেশি ঢেঁড়শের চাষ হয়। প্রায় একশো বিঘা জমিতে সেখানে ঢেঁড়শ চাষ করা হয়। তিনি বলেন, লকডাউনের জেরে এবছর কিছুটা হলেও ক্ষতির সম্মুখীন হয়েছেন ঢেঁড়শ চাষিরা।