ভোটগণনার আগে লালুর জামিন দুরাশা

475

পাটনা: যব তক রহেগা সমোসে মে আলু, বিহার মে রহেগা লালু। সমর্থকদের আশায় কিন্তু জল ঢেলে দিল ঝাড়খণ্ড হাইকোর্ট। আরজেডি আশা করেছিল, ভোটগণনার দিন হয়তো বিহারে দেখা যাবে লালুপ্রসাদ যাদবকে।

দুমকা ট্রেজারি মামলায় বিহারের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রীর কারাবাসের মেয়াদের অর্ধেক পূরণ হচ্ছে ৯ নভেম্বর। ওইদিনই লালুর জামিনের আবেদনের শুনানি হওয়ার কথা ছিল। ফলে সাময়িক মুক্তির আশা উজ্জ্বল হয়ে উঠেছিল তাঁর। ১০ তারিখে বিধানসভা নির্বাচনের ফল ঘোষণা হবে। কিন্তু জানা গেল, ফলপ্রকাশের দিন মুক্তি পাচ্ছেন না আরজেডি সুপ্রিমো। লালুর জামিনের আবেদনের শুনানি পিছিয়ে ২৭ নভেম্বর করেছে ঝাড়খণ্ডের উচ্চ আদালত। ১৯৭৭ সালে প্রথম সাংসদ হওয়ার পর লালুর অনুপস্থিতিতে একবারও বিহারের ভোট হয়নি। গত চার দশকে এই প্রথম রাজ্য বিধানসভা ভোটের ফল গণনায় দেখা যাবে না দুবারের মুখ্যমন্ত্রীকে। পশুখাদ্য কেলেঙ্কারির তিনটি মামলায় দোষী সাব্যস্ত হয়ে আপাতত কারাবন্দি লালুপ্রসাদ যাদব। যদিও শারীরিক অসুস্থতার জন্য জেলে না থেকে তিনি ঝাড়খণ্ডের রাজেন্দ্র মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন। যে তিনটি মামলায় তিনি জেলে আছেন, তার দুটিতে ইতিমধ্যে জামিন মিলেছে। দেওঘর ট্রেজারি মামলায় গতবছর এবং চাইবাসা মামলায় এবছর ৯ অক্টোবর জামিন পেয়েছেন তিনি। কিন্তু জেল থেকে মুক্তি পেতে হলে তাঁকে দুমকা ট্রেজারি মামলাতেও জামিন পাওয়া প্রয়োজন।

- Advertisement -