আদিবাসীদের জমিতে নজর মাফিয়াদের, দা হাতে চলছে পাহারা

342

রণজিত্ বিশ্বাস, রাজগঞ্জ : জমি মাফিয়াদের হাত এবার আদিবাসীদের জমিতে। রাজগঞ্জের মান্তাদারি গ্রাম পঞ্চায়েতের অন্তর্গত সরস্বতীপুর এলাকায় আদিবাসীদের জমি জোর করে দখল হচ্ছে বলে অভিযোগ। এই ঘটনায় এলাকায় শোরগোল পড়ে গিয়েছে। পুলিশি নিষ্ক্রিয়তার অভিযোগ তুলে দা নিয়ে জমি পাহারা দিচ্ছেন আদিবাসীরা। অন্যদিকে,  রাজগঞ্জের মিলনপল্লি ফাঁড়ির পুলিশ জানিয়েছে, এ ব্যাপারে তাদের কিছু জানা নেই।

রাজগঞ্জের সরস্বতীপুর এলাকায় আদিবাসীদের বসবাস। চা বাগানের শ্রমিক বা দিনমজুরের কাজই তাদের প্রধান জীবিকা। সেই আদিবাসীদের জমি রাতের অন্ধকারে জমি মাফিয়ারা দখল নেওয়ার চেষ্টা করছে বলে অভিযোগ। শুধু তাই নয়, পুলিশের একাংশও সেই জবরদখলে প্রচ্ছন্ন মদত দিচ্ছে তাই ক্ষোভে ফুঁসছেন আদিবাসীরা।

- Advertisement -

বাসন্তী গড়িয়া নামে এক মহিলা বলেন, আমার স্বামীর কয়েক বিঘা পৈতৃক জমি রয়েছে। গত ১৬ জানুয়ারি রাতে জমি মাফিয়ারা সেই জমি হালচাষ করে। পরের দিন মিলনপল্লি ফাঁড়িতে জানাতে গেলেও পুলিশ লিখিত অভিযোগ নেয়নি। সানচারিয়া ওরাওঁ বলেন, আমার জমিতে জোরপূর্বক দখল করে চা গাছ পোঁতা হয়েছে। বিষয়টি পুলিশকে জানানো হলেও কোনো সুরাহা হয়নি। জমির মালিকদের পক্ষে মণিরাম ওরাওঁ বলেন, সরস্বতীপুর ও তার আশপাশের এলাকায় মাফিয়ারা আদিবাসীদের প্রচুর জমি জোর করে দখলে নেওয়ার চেষ্টা করছে। বিষয়টি নিয়ে পুলিশকে লিখিত অভিযোগ জানাতে গেলে ওরা অভিযোগ নিচ্ছে না। এই ঘটনায় ওই আদিবাসীরা ক্ষোভে ফুঁসছে। এখানে ২৬টি পরিবারের প্রায় ১৩০ বিঘা জমি রয়েছে। তাঁরা সেই জমি হাতছাড়া হওয়ার আশঙ্কা করছেন। পুলিশ কোনো ব্যবস্থা না নেওয়ায় জমির মালিকরা একটি কমিটি তৈরি করে দা, কাঁচি নিয়ে জমি পাহারা দিচ্ছেন। প্রশাসন হস্তক্ষেপ না করলে যেকোনো সময় এখানে বড়ো গণ্ডগোল বাধার আশঙ্কা রয়েছে।

মিলনপল্লি ফাঁড়ির পুলিশ জানিয়েছে, ওই জমির ব্যাপারে কিছু জানা নেই। জমির মালিকরা লিখিত অভিযোগ করলে খতিয়ে দেখা হবে। রাজগঞ্জের বিডিও এন সি শেরপা বলেন, মান্তাদারি এলাকায় আদিবাসীদের জমি জবরদখলের বিষয়ে আমাকে কেউ জানায়নি। তবে খোঁজ নিয়ে দেখছি। মান্তাদারি গ্রাম পঞ্চায়েতের প্রধান দীপক বিশ্বাস বলেন, বৃহস্পতিবারই ওই এলাকার এক বিট অফিসার আমাকে বন দপ্তরের জমি দখল হচ্ছে বলে জানিয়েছেন। এর আগে এক চা শিল্পপতিও তাঁর জমি দখল করার অভিযোগ করেছিলেন। এবার আদিবাসীদের বিষয়টি শুনলাম। খোঁজ নিয়ে দ্রুত ব্যবস্থা নেব।