ভার্চুয়ালে শহীদ স্মরণ, মন খারাপ শক্তিগড়ের ল্যাংচা ব্যবসায়ীদের

112

প্রদীপ চট্টোপাধ্যায়, বর্ধমান: আছড়ে পড়তে পারে করোনা সংক্রমণের তৃতীয় ঢেউ। উদ্বেগে গোটা দেশ। এই পরিস্থিতিতে এবার ২১ জুলাই ভার্চুয়ালি শহীদ দিবস পালন করতে চলেছে তৃণমূল কংগ্রেস। এতেই একপ্রকার হতাশ হয়ে পড়েছেন পূর্ব বর্ধমানের শক্তিগড়-২ নম্বর জাতীয় সড়কের দু’ধারে থাকা ল্যাংচা ব্যবসায়ীরা।

রাজ্যে ক্ষমতায় অসার অনেক আগে অর্থাৎ দলের জন্মলগ্ন থেকেই ২১ জুলাই শহীদ দিবস পালন করে চলেছে তৃণমূল কংগ্রেস। প্রতি বছরই এই দিনটিকে সামনে রেখে হত বিশাল জমায়েত। এরই জেরে লাভের মুখ দেখতেন শক্তিগড়ের ল্যাংচা ব্যবসায়ীরা। যদিও করোনা আবহে তাঁদের মুখের হাসি উধাও। কেননা, এবার হবে না কোনও সমাবেশ। শহীদ দিবস পালন হবে ভার্চুয়ালি।

- Advertisement -

জানা যায়, ২১ জুলাই মানেই দুই বর্ধমান, বাঁকুড়া, বীরভূম, পুরুলিয়া মুর্শিদাবাদ সহ উত্তরবঙ্গের বিভিন্ন জেলা থেকে তৃণমূল কর্মী বোঝাই বাসগুলি ২ নম্বর জাতীয় সড়ক ধরে কলকাতা যেত। সভা শেষে ফেরার পথে গাড়ি দাঁড়াত শক্তিগড়ে ল্যাংচার দোকানের সামনে। তবে শুধু ল্যাংচা নয়, বর্ধমানের প্রসিদ্ধ মিষ্টি সীতাভোগ ও মিহিদানা কেনার জন্য ভিড় জমাতেন তৃণমূলের কর্মী-সমর্থকরা। ভিড় সামলাতে কালঘাম ছুটত দোকানদাদের। পরিস্থিতি সামাল দিতে এলাকায় মোতায়েন থাকত পুলিশও। তবে, সেই চেনা ছবি আর দেখা যাবে না।

শক্তিগড়ের এক ল্যাংচা ব্যবসায়ী বিশ্বজিৎ দাস বলেন, ‘এতকাল ২১ জুলাইয়ের একমাস আগে থেকে প্রস্তুতি নিতে হত। ওই একমাস কারিগর, কর্মচারী নিয়ে গমগম করত দোকান। আর ২১ জুলাইয়ের দিন তো কথাই নেই। যেন মহাযজ্ঞ চলত। এবার সমাবেশ হচ্ছে না। আমরা সকলেই হতাশ। সকলেরই মন খারাপ।’