শেষ দিনে মাদারিহাটে জমজমাট প্রচার তৃণমূলের

105

রাঙ্গালিবাজনা, ৮ এপ্রিলঃ আলিপুরদুয়ার জেলার মাদারিহাট বিধানসভা কেন্দ্রে শেষ দিন তৃণমূলের ভোটের প্রচার জমজমাট হয়ে উঠল। বৃহস্পতিবার মোরাঘাট সহ একাধিক চা বাগানে ছুটে বেড়ালেন তৃণমূলের প্রার্থী রাজেশ লাকড়া ওরফে টাইগার। বিমল গুরুংয়ের সাথে পাঁচ ছয়টি চা বাগানেও প্রচারাভিযান চালান তৃণমূলের নেতা ও কর্মীরা। শিশুঝুমরা গ্রামপঞ্চায়েত এলাকায় মোটরবাইক র‍্যালি, খয়েরবাড়িতে পথসভায় সরগরম হয়ে ওঠে এলাকা।

মাদারিহাটে তৃণমূল কর্মীরা এবার আগেভাগেই ভোট যুদ্ধের জন্য প্রস্তুতি নিয়েছিলেন। নেতাদের পাশাপাশি, এবার নীচুতলার কর্মীদেরও স্নায়ুর চাপ অনেক বেশি। কারণ, ২০১১ সালে রাজ্যে ক্ষমতায় এলেও, মাদারিহাট বিধানসভা কেন্দ্রটি তৃণমূলের কাছে অধরাই থেকে গিয়েছিল। সেইবারও মাদারিহাটে জয়লাভ করেছিলেন বামফ্রন্ট প্রার্থী কুমারি কুজুর। ২০১৬ সালে মাদারিহাটের আসনটি দখল করে বিজেপি। ২০১৯ সালের লোকসভা নির্বাচনে আলিপুরদুয়ার লোকসভা কেন্দ্রের অন্তর্গত মাদারিহাট বিধানসভা কেন্দ্রে তৃণমূলের চেয়ে ৪৩,৮৩৮ ভোটের ব্যবধানে এগিয়ে যান বিজেপি প্রার্থী। তাই, তৃণমূলের কর্মীদেরই কেউ কেউ জয় প্রসঙ্গে বলছেন, ‘হয় এবার, নয়তো নেভার!’

- Advertisement -

তৃণমূলের দাবি, বঙ্গধ্বনি যাত্রার মতো রাজনৈতিক কর্মসূচি ছাড়াও দুয়ারে সরকারের মতো সরকারি কর্মসূচি এবার তাঁদের জনসংযোগে বাড়তি অক্সিজেন দিচ্ছে। এছাড়া স্বাস্থ্য সাথী, খাদ্য সাথী, কন্যাশ্রীর মতো প্রকল্পগুলি ছাড়াও রাজ্য সরকারের তরফে চা বাগানের শ্রমিকদের জন্য চা সুন্দরী প্রকল্পে ঘর তৈরির প্রকল্পটিও এবছর ভোটের প্রচারে বাড়তি সুবিধা দিচ্ছে তৃণমূলকে। চা বাগান ছাড়াও অন্যান্য এলাকাগুলিতেও গত ৫ বছরে তৈরি হওয়া পাকা রাস্তা, পানীয় জলের প্রকল্পের মতো উন্নয়নমূলক কাজকর্মগুলির খতিয়ান এলাকাবাসীর সামনে তুলে ধরে ভোটের প্রচারে নেমেছেন শাসক দলের নেতা ও কর্মীরা। ১৩৬ কোটি টাকা ব্যয়ে বীরপাড়া থেকে লঙ্কাপাড়া পর্যন্ত দীর্ঘ ১৮ কিমি পাকা রাস্তাটি পুনর্নির্মান, টোটোপাড়া, লঙ্কাপাড়া, রামঝোরা, তুলসিপাড়া, বান্দাপানি, ঢেকলাপাড়া, জয়বীরপাড়ার মতো চা বাগানগুলিতে এনবিএসটিসির বাস পরিষেবা থেকে শুরু করে কন্যাশ্রী, সবুজ সাথী, জয় জোহার পেনশনের মতো জনকল্যাণমুখী সরকারি প্রকল্পগুলির কথা তৃণমূলের ভোটের প্রচারে প্রাধান্য পেয়েছে।

তৃণমূলের আলিপুরদুয়ার জেলা কমিটির সহসভাপতি পঙ্কজ দাস বলেন, মাদারিহাট বিধানসভা আসনে এবার আমাদের জয় নিশ্চিত। গতবার বিজেপি প্রার্থীকে ভোট দিয়ে অনেকেই আফসোস করছেন। এদিকে, মাদারিহাটের  বিদায়ী বিধায়ক তথা বিজেপি প্রার্থী রাজ্য মনোজ টিগ্গা বলেন, তৃণমূল সরকার মানুষের গণতান্ত্রিক অধিকার কেড়ে নিয়েছে। বেকার যুবক যুবতিরা ক্ষোভে ফুঁসছেন। বিধানসভা নির্বাচনে রাজ্যজুড়ে তার প্রতিফলন ঘটবে। মাদারিহাটে জিতবে বিজেপিই।