যুব সভানেত্রী সায়নী, খুশির আবহে শিল্পাঞ্চলে

139
ফাইল ছবি।

আসানসোল: সামান্য কিছু ভোটের ব্যবধানে বিজেপি প্রার্থী অগ্নিমিত্রা পালের কাছে পরাজিত হতে হয় তৃণমূল কংগ্রেস প্রার্থী সায়নী ঘোষকে। ঘটনায় খানিকটা মর্মাহত হয়েছিল শিল্পাঞ্চল আসালসোলের দলীয় নেতা-কর্মী সহ সমর্থক মহল। যদিও হারের প্রভাব পড়েনি সায়নী ঘোষের ওপর। বিধায়ক পদ না পেলেও জনপ্রতিনিধির ন্যায় আসানসোলবাসীর পাশে দাঁড়াতে দেখা যায় তাঁকে। যা অনেকেরই নজর কেড়েছে। দলীয় স্তরে গুঞ্জন সায়নীর এহেন কর্মকাণ্ড এবং তাঁর প্রতি আসানসোলবাসীর আস্থা নজর কাড়ে খোদ তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের। ফলস্বরূপ রাজ্য তৃণমূল যুব কংগ্রেসের সভাপতি পদে অভিসিক্ত হলেন সায়নী ঘোষ। ঘটনায় খুশির আবহ শিল্পাঞ্চলে।

চলতি বছরের ফেব্রুয়ারি মাসে ঘাসফুল শিবিরে যোগদানের মাধ্যমে রাজনীতির ময়দানে নামেন সায়নী ঘোষ। যোগদান পরবর্তীকালে তাঁকে আসানসোল দক্ষিণ বিধানসভার প্রার্থী ঘোষণা করে দল। নাম ঘোষণার দু’দিন বাদেই নিজের কেন্দ্রে পৌঁছে গিয়েছিলেন তিনি। যদিও সামান্য ভোটের ব্যবধানে পরাজিত হন তিনি। এরপরেই একপ্রকার গুঞ্জন শুরু হয় সায়নীর রাজনৈতিক ভবিষ্যত নিয়ে। যদিও সবাইকে আবাক করে বড় দায়িত্ব তাঁর কাঁধে তুলে দিলেন তৃণমূল সুপ্রিমো।

- Advertisement -

দলের রাজ্য সম্পাদক ভি শিবদাসন তরফে দাসু বলেন, ‘যোগ্য লোকের হাতেই দলের যুব সংগঠনের রাজ্য সভানেত্রীর দায়িত্ব তুলে দিয়েছেন দিদি। আমরা কাছ থেকে গত কয়েক মাসে দেখেছি সায়নী ঘোষ কতটা লড়াকু। সমস্ত মানুষকে কি করে কাছে টেনে নিতে হয় সেটা তিনি জানেন। তাঁর এই নতুন স্বীকৃতিতে আমরা খুব খুশি।’