মঙ্গলবার ফের বাম-কংগ্রেস জোটের বৈঠক

224

কলকাতা: বিহার বিধানসভা নির্বাচনের ফলে উৎসাহিত কংগ্রেস এরাজ্যে কালীপুজো মিটতেই দ্রুত জোট গঠনে উদ্যোগী হয়েছে। ঠিক হয়েছে মঙ্গলবারই দ্বিতীয় পর্বের বৈঠকে বসবেন বাম-কংগ্রেস নেতারা। প্রথম পর্বের বৈঠক হয়েছিল সপ্তমীর সন্ধ্যায় আরএসপির ক্রান্তি প্রেসে। অধীর চৌধুরী কংগ্রেস সভাপতি হিসেবে দায়িত্বগ্রহণের পর চার বাম দলের নেতাদের সঙ্গে কংগ্রেসের প্রথম বৈঠকটির ব্যাপারে বামেরাই উদ্যোগী হয়েছিল। এবার বিহার বিধানসভা ভোটের ফল রাজ্যের কংগ্রেস নেতাদের অনেকটাই উৎসাহিত করেছে। এব্যাপারে প্রদেশ কংগ্রেস সমন্বয় কমিটির চেযারম্যান প্রদীপ ভট্টাচার্যের সঙ্গে অধীরবাবুর কথা হয়। তারপরেই প্রদীপবাবু বামফ্রন্ট চেয়ারম্যান বিমান বসু ও সিপিএমের রাজ্য সম্পাদক সূর্যকান্ত মিশ্রের সঙ্গে কথা বলেন। অধীরবাবুও পৃথকভাবে বিমানবাবুর সঙ্গে কথা বলেন।

প্রদীপবাবু বলেন, বাম-কংগ্রেস দলগুলির যৌথ কর্মসূচি রাজ্যস্তরের পাশাপাশি জেলাস্তরে ছড়িয়ে দেওয়া দরকার। কেন্দ্রীয় ও রাজ্য সরকারের জনবিরোধী নীতিগুলি নিয়ে এরাজ্যের সর্বত্র আমরা একসঙ্গে আন্দোলন গড়ে তুলতে চাই। সব বিষয়ে বাম নেতত্বের সঙ্গে আলোচনা হবে। বাম দলগুলি জানিয়েছে, কোথায কখন বৈঠক হবে তা কংগ্রেস নেতাদের সঙ্গে কথা বলেই ঠিক করা হবে। বুধবারই অধীরবাবু বাদুড়িয়ায় সভা করতে যাচ্ছেন। সেখানকার বিধাযক কাজি আব্দুল রহিম ওরফে দিলু কংগ্রেস ছেড়ে তৃণমূলে যোগ দিয়েছেন। তাই সেখানে শক্তি প্রদর্শনের জন্য সভা ডেকেছে কংগ্রেস। ওইদিনই বাম ছাত্র সংগঠনগুলি নানা ইস্যুতে রাজ্যজুড়ে বিক্ষোভ কর্মসূচির ডাক দিয়েছে। লকডাউনে বহু মানুষ কাজ হারিয়েছেন। তার ওপর কেন্দ্রীয় সরকার একের পর এক বিল পাস করে সাধারণ মানুষের দুর্দশা বাড়িয়ে চলেছে। এর প্রতিবাদে ২৬ নভেম্বরের ধর্মঘটে ছাত্রসমাজকে যোগ দিতে আহ্বান জানিয়েছে এসএফআই, এআইএসএফ, পিএসইউ, ছাত্র ব্লক, আইসা এবং ডিএসও।

- Advertisement -

একুশের ভোটের ছক কষতে মঙ্গলবার বৈঠকে বসছে রাজ্য বিজেপি। তবে বিজেপির সবাই নন নির্বাচনে এরাজ্যের গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্বে থাকা মাথারাই নিজেদের মধ্যে নীতি নির্ধারণ করবেন বৈঠকে। একদিকে কেন্দ্রীয় নেতৃত্বের তরফে থাকবেন বিএল সন্তোষ, থাকবেন সদ্য রাজ্যের সহপর্যবেক্ষকের দায়িত্ব পাওয়া আইটি সেলের প্রধান অমিত মালব্য, আরেক সহপর্যবেক্ষক অরবিন্দ মেনন, পর্যবেক্ষক কৈলাস বিজয়বর্গীয় ও সর্বোপরি বিজেপির সর্বভারতীয় সহসভাপতি মুকুল রায়। রাজ্য সফরে এসে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শা বড় মুখ করে বলে গিয়েছেন, এরাজ্যে একমাত্র তাঁদেরই বুথভিত্তিক সংগঠন রয়েছে। কিন্তু আদতে বেশকিছু বুথে এখনও বিজেপির কমিটি তৈরি হয়নি। এইসব নিয়ে ওই বৈঠকে আলোচনা হবে। প্রচারে নতুন দৃষ্টিভঙ্গি আনতে রাজ্য বিজেপির মিডিয়া এবং আইটি সেলেও বেশ কিছু রদবদল করতে পারেন অমিত মালব্য। একজোটে কাজ করার ব্যাপারে এই বৈঠক থেকেই নেতাদের বার্তা দেওয়া হবে বলে মনে করা হচ্ছে।