কৃষি বিলের প্রতিবাদে রাস্তায় বাম, কংগ্রেস ও তৃণমূল

558

কলকাতা: সংসদের উভয় কক্ষে পাস হওয়া কৃষি বিল সহ একাধিক বিলের প্রতিবাদে দেশ উত্তাল হয়ে উঠেছে। এরাজ্যও বিক্ষোভ হয়েছে। শুক্রবার সকাল থেকেই বামপন্থী দল, কৃষক সংগঠন ও কংগ্রেসের তরফে যেমন রাজ্যের বিভিন্ন জাতীয় ও রাজ্য সড়ক অবরোধ করা হয়, তেমনই তৃণমূল কংগ্রেসের তরফেও বেশ কিছু এলাকায় প্রতিবাদ মিছিল বের করা হয়।

এদিন সন্ধ্যায় ধর্মতলার লেলিন মূর্তির পাদদেশ থেকে একটি  মিছিল বের হয়। ১৬টি বামপন্থী দল, তাদের ছাত্র-যুব, মহিলা, শ্রমিক সংগঠনের পাশাপাশি ওই মিছিলে অংশ নেয় কংগ্রেস, ইনটাক সহ বেশ কিছু রাজনৈতিক দল। মিছিলে নেতৃত্বদেন বামফ্রন্ট চেয়ারম্যান বিমান বসু, পিটার রাজ্য সম্পাদক অনাদি সাউ, প্রদেশ কংগ্রেস নেতা তথা সাংসদ প্রদীপ ভট্টাচার্য, অমিতাভ চক্রবর্তী সহ অন্যরা। মিছিলটি লেলিন সরণি, নির্মলচন্দ্র দে স্ট্রিট, বিধান সরণি হয়ে শ্যামবাজারের পাঁচ মাথার মোড়ের কাছে শেষ হয়। মিছিলের জেরে সন্ধ্যার পর কলকাতা শহরে ব্যাপক যানজট হয়।

- Advertisement -

অপরদিকে, এদিন দুপুরে প্রদেশ কংগ্রেস দপ্তরে একটি সাংবাদিক বৈঠকে অংশ নেন দলের সর্বভারতীয় মুখপাত্র মোহন প্রকাশ, নাদিম জাভেদের মতো নেতারা। তাঁরা কেন্দ্রের ওই বিলের তীব্র নিন্দা করেন। এদিনের সাংবাদিক বৈঠকে তাঁরা জানান, আগামী ২৮ সেপ্টেম্বর দেশের সবক’টি রাজ্যের রাজধানীতে কংগ্রেসের তরফে প্রতিবাদ ও বিক্ষোভ কর্মসূচি পালিত হবে। ২ অক্টোবর মহাত্মা গান্ধীর জন্মদিনটিকে তাঁরা কৃষক-মজুর দিবস হিসেবে পালন করবেন। ১০ অক্টোবর প্রতি রাজ্যে অনুষ্ঠিত হবে কিষান সম্মেলন। এছাড়া ২ অক্টোবর থেকে ৩১ অক্টোবর পর্যন্ত তাঁরা প্রতিটি গ্রামে গিয়ে এই বিলের বিরোধিতা যেমন করবেন, তেমনই সাধারণ মানুষকে এই বিলের অপকারিতা সম্পর্কে বোঝাবেন ও সই সংগ্রহ করবেন। তাঁরা কমপক্ষে দু’কোটি মানুষের সই সংগ্রহ করে তা রাষ্ট্রপতির কাছে পেশ করবেন। সাংবাদিক বৈঠকে মোহন প্রকাশ বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি যে সমস্ত নীতি গ্রহণ করছেন তার কোনওটি আমজনতার জন্য নয়। সবই শিল্পপতিদের জন্য।’

কৃষি বিলের প্রতিবাদে রাস্তায় বাম, কংগ্রেস ও তৃণমূল| Uttarbanga Sambad | Latest Bengali News | বাংলা সংবাদ, বাংলা খবর | Live Breaking News North Bengal | COVID-19 Latest Report From Northbengal West Bengal India

এদিনের মিছিলে অংশ নিয়েছিলেন কংগ্রেস নেতা আব্দুল মান্নান, পিটার রাজ্য সম্পাদক অনাদি সাউ, বামফ্রন্ট চেয়ারম্যান বিমান বসু, প্রদীপ ভট্টাচার্য প্রমুখ। তাঁরা জানান, কেন্দ্র যতদিন না কৃষক মারা বিল, অত্যাবশ্যক ও শ্রম আইন প্রত্যাহার করছে ততদিন পর্যন্ত তাঁদের আন্দোলন চলবে। তাঁরা স্লোগান তোলেন, ‘মানুষ মারা সরকার হয় নীতি বদলাও, নইলে মানুষ তোমাদের ছুঁড়ে ফেলে দেবে।’

অন্যদিকে, এদিন ধর্মতলায় গান্ধী মূর্তির পাদদেশে আয়োজিত তৃণমূলের বিক্ষোভ সমাবেশে কৃষকরা বিল প্রত্যাহারের দাবি তোলেন। পাশাপাশি তাঁরা বিভিন্ন শস্য, ধান দিয়ে ভারতবর্ষের মানচিত্র এঁকে অভিনবভাবে প্রতিবাদ জানান। তৃণমূলের কিষান-ক্ষেতমজুর সংগঠনের সভাপতি তথা বিধায়ক বেচারাম মান্না জানান, যতদিন না কেন্দ্র ওই বিল প্রত্যাহার করছে, ততদিন তাঁরা রাজ্যে আন্দোলন চালিয়ে যাবেন। এদিনের কর্মসূচিতে তাঁরা প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির কুশপুতুলও দাহ করেন।