৭ দফা দাবিতে বাম-কংগ্রেসের অবস্থান বিক্ষোভ

167

আসানসোল ও দুর্গাপুর: কেন্দ্রের আনা কৃষি আইন বাতিল, বন্ধ কলকারখানা চালু করা, পশ্চিম বর্ধমান জেলায় একটি মেডিকেল কলেজ তৈরী, বেকার যুবকদের কর্মসংস্থান সহ ৭ দফা দাবিতে সিপিএম ও কংগ্রেস যৌথভাবে আসানসোলের কুলটি থানার চৌরঙ্গী মোড় ও রানিগঞ্জ থানার পাঞ্জাবি মোড়ের ২নং জাতীয় সড়কে অবরোধ করে বিক্ষোভ দেখায়। রবিবার এই অবরোধের কারণে বাংলা ঝাড়খন্ড সীমান্ত লাগোয়া চৌরঙ্গী মোড় ও রানিগঞ্জের পাঞ্জাবি মোড় সংলগ্ন এলাকার ২ নং জাতীয় সড়কে ব্যাপক যানজট হয়। গাড়ি চলাচল বন্ধ হয়ে যায়।

পশ্চিম বর্ধমান জেলার সিপিএমের জেলা সম্পাদক গৌরাঙ্গ চট্টোপাধ্যায় বলেন, ‘কয়েকটি দফা দাবি নিয়ে আমরা এদিন যৌথ কর্মসূচি পালন করলাম। জেলা কংগ্রেসের সভাপতি দেবেশ চক্রবর্তী বলেন,  কৃষকদের পাশে আমরা একসঙ্গে যেমন আছি,  তেমনিই এই শিল্পাঞ্চলে বন্ধ কারখানাগুলো চালু করা সহ একাধিক দাবিতে আমরাও ঐক্যবদ্ধভাবে এই লড়াইয়ে নেমেছি।‘

- Advertisement -

তাঁরা আরও বলেন,  ‘পশ্চিম বর্ধমান জেলায় একাধিক কলকারখানা বন্ধ আছে। সেগুলো দ্রুত চালু করার ব্যবস্থা করতে হবে। বেকার যুবকদের কর্মসংস্থান সুনিশ্চিত করতে হবে। লকডাউনের ফলে প্রচুর বাংলা যুবক বাংলায় ফিরে এসেছে। ৩টি কৃষি বিল প্রত্যাহার করতে হবে কেন্দ্রকে।‘ তাছাড়াও, পশ্চিম বর্ধমান জেলায় সরকারি মেডিক্যাল কলেজ করার দাবিও জানান তাঁরা।

পাশাপাশি তাঁরা বলেন, ‘পশ্চিম বর্ধমান জেলাজুড়ে চলছে অবৈধ বালি ও কয়লার কারবার ও সিন্ডিকেটরাজ। এই সমস্ত চোরাকারবারিদের মদত দিচ্ছে শাসকদল তৃণমূল কংগ্রেসের নেতারা।  তৃণমূল কংগ্রেসের ঐসব দাগি নেতারাই আবার চলে যাচ্ছে বিজেপিতে। তাই রাজনৈতিক নৈরাজ্য দূর করতে ও সন্ত্রাসমুক্ত দুর্নীতিমুক্ত সরকার গঠন করতে হবে।‘

রানিগঞ্জের পথ অবরোধ কর্মসূচিতে উপস্থিত ছিলেন রাজ্যের প্রাক্তন মন্ত্রী ও সাংসদ বংশগোপাল চৌধুরী, রানিগঞ্জের বিধায়ক রুনু দত্ত, কংগ্রেস নেতা ভক্তি চক্রবর্তী সহ কংগ্রেস ও সিপিএমের একাধিক নেতা।

অন্যদিকে, এদিন একইভাবে একই দাবিতে দুর্গাপুরের বাঁশকোপা মোড়ে সিপিএম ও কংগ্রেস ২ নং জাতীয় সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ দেখায়।