দড়ি দিয়ে বাঁধা পা, ৯ দিন বাদে উদ্ধার তলিয়ে যাওয়া কিশোরের দেহ

107

মাথাভাঙ্গা ও পারডুবি: মানসাই নদীতে স্নান করতে গিয়ে তলিয়ে যাওয়ার ৯ দিন বাদে কিশোরের পচা গলা দেহ উদ্ধার হল। মাথাভাঙ্গা-২ ব্লকের খাটেরবাড়ি এলাকার ঘটনা। স্থানীয় ও পরিবার সূত্রে জানা গিয়েছে, মৃতদেহটির পায়ে প্লাস্টিকের দড়ি তিন ভাঁজ করে বাঁধা অবস্থায় উদ্ধার হয়। অভিযোগ, পরিকল্পনা মাফিক কিশোরকে হত্যা করা হয়েছে। পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, মৃতের নাম দীপায়ন বিশ্বাস(১৫)। ২৩ এপ্রিল শুক্রবার দুপুর নাগাদ মানসাই নদীতে প্রায় সাতজন বন্ধু মিলে নদীতে স্নান করতে যায় ওই কিশোর। ঘটনার পর থেকে একটানা কয়েকদিন পুলিশ প্রশাসনের তরফে স্পিডবোট ও ডুবুরি নামিয়ে তল্লাশি চালিয়েও দেহের সন্ধান মেলেনি। অবশেষে রবিবার বিকেল ৪টে নাগাদ নদীতে মাছ ধরার সময় জেলেরা মানসাই নদী তীরবর্তী তেকুনিয়া ফরেস্ট সংলগ্ন এলাকায় মৃতদেহ ভেসে উঠতে দেখেন। এরপরই চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়ে এলাকায়। ঘটনাস্থলে মাথাভাঙ্গা থানার পুলিশ পৌঁছে দেহ উদ্ধার করে মাথাভাঙ্গা মর্গে পাঠান। ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ।

ওই কিশোরের কাকু স্বপন বিশ্বাস জানান, কয়েকদিন ধরে প্রশাসনের খোঁজাখুজির পরেও কোনও হদিস না পাওয়ায় শেষে কবিরাজের দ্বারস্থ হয়ে মানসাই নদী তীরবর্তী এলাকায় পুজোর আয়োজন করে মানতও করেছি। অবশেষে আমাদের ছেলের মৃতদেহ পায়ে প্লাসটিকের দড়ি তিনভাজ করে বাঁধা অবস্থায় উদ্ধার হয়েছে। পরিকল্পনা মাফিক তাঁদের ছেলেকে হত্যা করা হয়েছে বলে অভিযোগ করেন তিনি। তিনি জানান, থানায় অভিযোগ দায়ের করা হবে। পুলিশ প্রশাসন যাতে সঠিক তদন্ত করে ঘটনার রহস্য উন্মোচন করে এই আবেদন জানিয়েছেন পরিবারের সদস্যরা।

- Advertisement -