রান্নাঘর থেকে চিতাবাঘের শাবক উদ্ধার

481

ফাঁসিদেওয়া: লোকালয় থেকে চিতাবাঘের শাবক উদ্ধারের ঘটনায় ব্যাপক চাঞ্চল্য ছড়াল। বৃহস্পতিবার রাতে ফাঁসিদেওয়া ব্লকের ঘোষপুকুর সংলগ্ন ৩১ নম্বর জাতীয় সড়কের পাশে ময়লানিজোত এলাকায় একটি গৃহস্থ বাড়ির রান্নাঘর থেকে ওই চিতাবাঘের শাবকটি উদ্ধার হয়েছে। ঘটনাকে কেন্দ্র করে স্থানীয়রা আতঙ্কিত হয়ে ঘরের বাইরে বেরিয়ে আসেন। খবর পেয়ে ঘোষপুকুর বন দপ্তরের কর্মীরা ঘটনাস্থলে পৌঁছান।

পাশাপাশি, ঘোষপুকুর ফাঁড়ির পুলিশ ওই বাড়িতে পৌঁছে স্থানীয়দের সাবধান করেন। চিতার শাবকটিকে উদ্ধার করতে গিয়ে বনকর্মীদের একজন আহত হয়েছেন বলে বন দপ্তর সূত্রে জানা গিয়েছে। জাতীয় সড়কের পাশে জনবহুল এলাকায় চিতাবাঘের শাবক উদ্ধারের ঘটনায় ইতিমধ্যেই এলাকাবাসী আতঙ্কিত হয়ে পড়েছেন। এদিন প্রশান্ত চন্দ্র নামে এক ব্যক্তির রান্নাঘরে সন্ধ্যা নাগাদ বাড়ির গৃহবধূ হঠাৎ একটি প্রাণী দেখতে পান। বাড়ির মহিলারা নিশ্চিত হন যে, সেটি বিড়ালের শাবক ছিল না। এরপরই রান্নাঘর বন্ধ করে খবর দেওয়া হয় বনদপ্তরে। বিষয়টি নিয়ে বাড়ির মহিলারাও আতঙ্কিত হয়ে পড়েছেন।

- Advertisement -

বাড়ির মালকিন আরতী চন্দ জানিয়েছেন, হঠাৎ এধরনের ঘটনাকে কেন্দ্র করে তাঁরা চিন্তিত হয়ে পড়েছেন। যদিও, চিতাবাঘের শাবকটিকে বনকর্মীরা উদ্ধার করে নিয়ে যাওয়ায় কিছুটা স্বস্তির নিঃশ্বাস এলাকাবাসীদের মধ্যে। স্থানীয় বাসিন্দা রামকৃষ্ণ দেব রায় জানিয়েছেন, আশেপাশে কয়েকটি চা বাগান রয়েছে। সেখান থেকেই চিতাবাঘের শাবক বাড়ির ভেতরে প্রবেশ করেছিল বলে প্রাথমিকভাবে মনে হচ্ছে। তবে, এলাকায় এধরণের ঘটনা আগে কখনও ঘটেনি।

ঘোষপুকুর বনদপ্তরের রেঞ্জার সোনম ভুটিয়া জানিয়েছেন, একটি জন্তুর শাবক উদ্ধার হয়েছে। তবে, সেটি চিতাবাঘ নাকি অন্য কোনও প্রজাতির তা এখনই বলা যাচ্ছে না। ঘটনায় একজন বনকর্মী আহত হয়েছেন। তাঁকে চিকিৎসার জন্য হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে। তবে, চিতাশাবকটি কোথায় ছাড়া হবে, তা এখনও জানা যায়নি।