চিতাবাঘের দেহ উদ্ধার চা বাগানে

476

কালচিনি: চিতাবাঘের দেহ উদ্ধারের ঘটনায় চাঞ্চল্য ছড়াল কালচিনির চিঞ্চুলা চা বাগানের আউট ডিভিশন গাঙ্গুটিয়া বাগানে। শুক্রবার বিকেলে বাগানের কয়েকজন কিশোর চা ফুল সংগ্রহ করতে গিয়ে ৯৬ নম্বর সেকশনে পূর্ণবয়স্ক চিতাবাঘটির দেহ ঝোঁপের আড়ালে পড়ে থাকতে দেখেন। শ্রমিক মহল্লায় খবর দিলে সেখান থেকে বন দপ্তরে খবর দেওয়া হয়। খবর পেয়ে বক্সা ব্যাঘ্র প্রকল্পের অধীন পানা রেঞ্জের বধকর্মীরা ঘটনাস্থলে পৌঁছে দেহটি উদ্ধার করেন। ঠিক কীভাবে চিতাটির মৃত্যু হয়েছে তা অবশ্য জানাতে পারেননি বনকর্তারা।

তবে বাগানের কয়েকজন বাসিন্দা বলেন চিতাবাঘটির মুখে সামান্য রক্ত দেখা গিয়েছে। এর থেকে বনকর্মীদের একাংশের অনুমান, চা বাগানের কীটনাশক খেয়ে চিতাবাঘটির মৃত্যু হয়ে থাকতে পারে। তবে বাঘটির শরীরে কোনও চোট আঘাত না দেখতে পাওয়ায় বনকর্তারা প্রাথমিকভাবে মনে করছেন চিতাবাঘটিকে হত্যা করা হয়নি। বাগানের বাসিন্দারা জানান, চা বাগানের আলো-আঁধারি ও শান্ত পরিবেশে চিতাবাঘ থাকতে পছন্দ করে। সেই কারণে জঙ্গল লাগোয়া বিভিন্ন চা বাগানে চিতাবাঘ অনেক সময় স্থায়ীভাবে বসবাস করে। তবে শুখা মরশুমে চা গাছে অনেক সময় কীটনাশক ছেঁটানো হয়। ভুল করে অনেক সময় ওই কীটনাশক খেয়ে মারা যায় চিতাবাঘ।

- Advertisement -

বক্সা ব্যাঘ্র প্রকল্পের উপক্ষেত্র অধিকর্তা উমর ইমাম বলেন, কীভাবে চিতাবাঘটির মৃত্যু হল সেটি ময়নাতদন্তের রিপোর্ট পেলে বলা সম্ভব। রাজাভাতখাওয়া পশু হাসপাতালের চিকিৎসকরা বাঘটির ময়নাতদন্ত করবেন।