তীব্র গর্জন! বাগানে পাতা খাঁচায় ধরা দিল চিতাবাঘ

135

বানারহাট: বন দপ্তরের পাতা খাঁচায় বন্দী হল চিতাবাঘ। ঘটনাটি ঘটেছে শনিবার রাত আনুমানিক সাড়ে এগারোটা নাগাদ বানারহাটের গেন্দ্রাপাড়া চা বাগানে। উল্লেখ্য, বেশ কিছুদিন ধরেই বাগানটিতে চিতাবাঘের উপদ্রবের খবর পাওয়া যাচ্ছিল। সপ্তাহখানেক আগে বাগানে একটি চিতাবাঘকে ঘোরাঘুরি করতে দেখে ক্যামেরাবন্দী করেছিলেন বাগানের শ্রমিক কল্যাণ আধিকারিক বিশু দাস। তারপরই বাগান কর্তৃপক্ষের অনুরোধে ছাগলের টোপ দিয়ে খাঁচা পাতে বন দপ্তর।  এদিন রাত আনুমানিক সাড়ে এগারোটা নাগাদ বাগানের চৌকিদার দেখতে পান ২০ এবং ২১ নং সেকশনের মাঝে ম্যানেজার বাংলোর কাছাকাছি পাতা খাঁচায় একটি চিতাবাঘ ধরা পড়েছে। খবর পেয়ে বন্যপ্রাণ শাখার বিন্নাগুড়ি রেঞ্জের রেঞ্জার শুভাশিস রায় এবং অনারারি ওয়াইল্ডলাইফ ওয়ার্ডেন সীমা চৌধুরী বনকর্মীদের নিয়ে রাতেই ঘটনাস্থলে ছুটে আসেন। রাত সাড়ে বারোটা নাগাদ পূর্ণবয়স্ক স্ত্রী চিতাবাঘটিকে উদ্ধার করে নিয়ে যান তাঁরা।

সীমা চৌধুরী জানান, চিতাবাঘটিকে প্রাথমিক চিকিৎসার জন্য গরুমারায় নিয়ে যাওয়া হয়েছে, সেখানে তার স্বাস্থ্য পরীক্ষার পর জঙ্গলে ছেড়ে দেওয়া হবে। গেন্দ্রাপাড়া চা বাগানের শ্রমিক কল্যাণ আধিকারিক বিশু দাস জানান, চিতাবাঘটি খাঁচাবন্দী হওয়ায় শ্রমিকদের মনে অনেকটাই স্বস্তি ফিরলেও তাঁরা নিশ্চিত বাগানে একটি নয়, আরও কয়েকটি চিতাবাঘ রয়েছে। বন দপ্তরের কাছে ফের খাঁচা পাতার আর্জি জানানো হবে বলে জানিয়েছেন তিনি। রেঞ্জার শুভাশীষ রায় জানান, চা বাগান কর্তৃপক্ষ আবেদন জানালে বাগানে আবারও খাঁচা পাতার ব্যবস্থা করা হবে।

- Advertisement -