অতীতের ছায়ার সঙ্গে লড়তে হচ্ছে স্পেনকে

স্পেন – ১ (মোরাতা ২৫) : পোল্যান্ড – ১ (লেওয়ানডস্কি ৫৪)

সেভিল : জাভি-ইনিয়েস্তাদের উত্তরসূরী হিসেবে আলভারো মোরাতারা একেবারেই বেমানান। ইউরো কাপে পারফরমেন্সের পর সমর্থক হোক বা বিশেষজ্ঞ- সবারই এক মত।

- Advertisement -

যেমন শনিবার রাতের পোল্যান্ড ম্যাচ। ঘরের মাঠে সব সুযোগ কাজে লাগাতে পারলে অন্তত ৫ গোল দেয় স্পেন। তার বদলে ১ পয়েন্ট নিয়ে মাঠ ছাড়তে হল। দুই ম্যাচে ২ পয়েন্ট নিয়ে নকআউটে যাওয়ার দৌড়ে বেশ পিছিয়ে লুইস এনরিকের ছেলেরা। তিনি নিজে অবশ্য দলের পারফরমেন্স নিয়ে সমালোচনা শুনতে নারাজ। জেতা ম্যাচ ড্র করার পর বললেন, ম্যাচ না জিতলেও আমরা প্রতিপক্ষের তুলনায় ভালো খেলেছি। কঠিন সময়ে পেনাল্টি কাজে লাগাতে পারলে হয়তো ফল অন্য কিছু হত। জানি আমাদের কাজটা সহজ নয়। শেষ ম্যাচটা আমাদের জিততেই হবে।

প্রথম ম্যাচে একের পর এক সুযোগ নষ্ট করলেও মোরাতাকে দলে রেখেছিলেন এনরিকে। তবে রাইট উইংয়ে ফেরান টোরেসের বদলে নামালেন জেরার্ড মোরেনোকে। ২৫ মিনিটে মোরেনোর পাস থেকেই গোল করলেন মোরাতা। লাইন্সম্যান অফসাইড দিলেও ভিডিও দেখে স্পেনের পক্ষে রায় দিলেন রেফারি। আবার এই জুটিই স্প্যানিশ আর্মাডার তরী ডোবাল। ৫৪ মিনিটে রবার্ট লেওয়ানডস্কি সমতা ফেরানোর ঠিক পরেই পেনাল্টি পায় স্পেন। মোরেনোর শট লাগল পোস্টে, ফিরতি বল বাইরে পাঠালেন মোরাতা। মোরাতার পাশাপাশি সুযোগ নষ্ট করলেন ড্যানি ওলমো। অফসাইডে পিয়ত্র জেলিনস্কির গোল বাতিল না হলে এক পয়েন্টও হয়তো পেত না স্পেন।

ম্যাচ শেষে মোরাতা অবশ্য উল্টে সমালোচনা নিয়ে প্রশ্ন তুললেন। তাঁর বক্তব্য, সমালোচকদের কথা শুনে আমাদের কোনও লাভ হবে না। কারণ তাঁরা সমালোচনার জন্য সুযোগ খোঁজেন। ইউরো বা এ ধরণের প্রতিযোগিতায় অংশ নেওয়া যে কোনও বড় দেশের ক্ষেত্রে একথা প্রযোজ্য। ইউরোয় স্পেনের শেষ ৫ গোলের চারটিই এসেছে মোরাতার পা থেকে। দলের পারফরমেন্স নিয়ে বললেন, আমরা এমন একটা প্রজন্মের উত্তরসূরী যারা সব জিতেছে। তাঁদের সঙ্গে তাল মেলানো কঠিন কাজ। তবে আমরা চেষ্টা করছি। পেনাল্টি মিস করলেও সতীর্থ মোরেনোর পাশেই দাঁড়িয়েছেন। বরং ফিরতি বলে শট নেওয়ার সময় আরও সাবধানী হওয়া উচিত ছিল বলে মনে করছেন তিনি।

পোল্যান্ড বস পাওলো সৌসা অবশ্য এক পয়েন্টেই খুশি। বললেন, স্পেন বড় দল। এই পারফরমেন্স ধরে রাখতে পারলে আমরা ভালো কিছু করব। অধিনায়ক লেওয়ানডস্কি প্রসঙ্গে তাঁর বক্তব্য, রবার্ট বর্তমানে বিশ্বের সেরা গোলস্কোরার। ফলে গোল পাওয়াটা ওর জন্য ইতিবাচক। আর গোল করার পাশাপাশি সুযোগ তৈরি করে ও দলকে সাহায্য করে। পোল্যান্ডের প্রথম ফুটবলার হিসেবে পরপর তিন ইউরোয় গোল করা লেওয়ানডস্কি অবশ্য এখন থেকেই সুইডেনকে হারানো নিয়ে পরিকল্পনা শুরুর বার্তা দিয়েছেন।

পরের পর্বে যাওয়ার জন্য স্লোভাকিয়ার বিরুদ্ধে জিততে হবে স্পেনকেও।