মদ কিনতে ‘গণেশ ঠাকুর’কেও লাইনে দাঁঁড় করাল মদ্যপ্রেমীরা

সুকমল ঘোষ, ফালাকাটা: মদের দোকান খোলার আশায় লাইন রাখতে গনেশ ঠাকুরকেও ছাড় দিলেন না সুরাপ্রেমীরা। লকডাউনে দেশজুড়েই চলছে মদের হাহাকার৷ মদ না পেয়ে সমস্যায় সুরাপ্রেমীরা।

মদের আকালে কালোবাজারে তিন থেকে চারগুন দামে বিক্রি হচ্ছে মদ। সরকারি ঘোষণা মোতাবেক, সোমবার সকাল ১০টা থেকে মদের দোকানগুলি খোলার কথা ছিল৷ সেই মতো আগের দিনই বাঁশের ব্যারিকেড করে নিরাপত্তা বাড়ানো হয়েছে ফালাকাটার মদের দোকানগুলিতে। সেই ছবি গতকাল রাত থেকেই ঘুরছিল সোশ্যাল মিডিয়ায়৷ তাতেই মদের দোকান খুলছে বলে নিশ্চিত হয়ে যান সুরাপ্রেমীরা। সেই মতো এদিন সাত সকালেই ভিড় জমে যায় ফালাকাটা শহরের নেতাজি রোডের বিলিতি মদের দোকানের পাশে।

- Advertisement -

সুরাপ্রেমীরা মদের দোকানের লাইনে না দাঁড়ালেও অনেকেই পাথর, ব্যাগ দিয়ে লাইন রাখেন৷ ছাড় দেওয়া হয়নি গনেশ ঠাকুরকেও। একটি গণেশ মূর্তি বসিয়েও মদ কেনার লাইন রাখতে দেখা যায়। শেষ পর্যন্ত অবশ্য শহরের নেতাজি রোডের ওই মদের দোকান এদিন খোলেনি। বেলা ১২টা নাগাদ হতাশ হয়ে ফিরে যান মদের দোকানের আশেপাশে জটলা করে থাকা সুরাপ্রেমীরা৷

সরকারি তরফে ঘোষণার পরেও মদের দোকান না খোলায় ক্ষোভ প্রকাশ করেন বহু সুরাপ্রেমী৷ নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক মদ কিনতে আসা এক সুরাপ্রেমী বলেন, ফালতু হয়রানি করা হল আমাদের। কাজকর্ম ফেলে ভোর ৫টা থেকে দাঁড়িয়ে ছিলাম মদ কিনতে। অনেকদিন ধরেই মদ খেতে পারছিলাম না৷ অপর এক সুরাপ্রেমী বলেন, ফালাকাটায় কালোবাজারে তিন চার গুন দামে মদ বিক্রি হচ্ছে৷ চড়া দামে মদ কেনার এত টাকা কোথায় পাব। অনেকদিন ধরেই গলা ভেজাতে পারছি না৷ সরকারি ঘোষণার কথা জেনে সরকারি দোকান থেকে ন্যায্যমূল্যে মদ কিনতে এসেছিলাম৷ কিন্তু কয়েক ঘন্টা অপেক্ষা করেও দোকান না খোলায় চরম হতাশ হয়েই ফিরে যাচ্ছি৷