সাহিত্য নির্ভর শর্টফিল্ম ‘ফিসিং’-এর শুটিং সমাপ্ত

285

জামালদহ: উত্তরবঙ্গের উদীয়মান সাহিত্যিক শশীবালা অধিকারীর গল্পগ্রন্থ ‘ভূত যাবে যমের বাড়ি’ গল্প অবলম্বনে তৈরি হচ্ছে স্বল্প দৈর্ঘ্যের ছবি। ছবি পরিচালনার দায়িত্ব নিয়েছেন দক্ষিণবঙ্গের ‘অন্বেষা প্রকাশন’-এর কর্ণধার শিবু দাস। ‘ফিশিং-এ ঘোস্ট স্টোরি’ নামের এই শর্টফিল্মটির শুটিং করোনা আবহের মধ্যেই সদ্য সমাপ্ত হয়েছে। ছবিটি এবার মুক্তির অপেক্ষায়। ছবির প্রায় পুরো অংশেই শুট হয়েছে উত্তরবঙ্গের প্রাকৃতিক ও মনোরম পরিবেশে। শুটিং হয়েছে জামালদহ, মাথাভাঙ্গা ও অন্যান্য জায়গায়। ফিল্মটিতে মুখ্য ভূমিকায় অভিনয় করেছেন স্বয়ং লেখিকা শশীবালা অধিকারী। ছবির পরিচালক শিবুবাবু জানিয়েছেন, ‘শুটিং পর্বে উত্তরবঙ্গের মানুষের কাছ থেকে অপ্রত্যাশিত সহযোগিতা পেয়েছি। করোনা পরিস্থিতি একটু স্বাভাবিক হলেই পোস্ট প্রোডাকশনের কাজ শুরু করা হবে।’

সাহিত্য নির্ভর বাংলা সিনেমা খুবই কম হয়। তার থেকেও কম হয় উদীয়মান কবি-সাহিত্যিকদের লেখা নিয়ে ফিল্ম। কিন্তু এক্ষেত্রে সাহস করে এগিয়ে এসেছে অন্বেষা প্রকাশন। তাঁদের প্রচেষ্টায় উত্তরবঙ্গের মাথাভাঙ্গা ১ নম্বর ব্লকের গোপালপুর নিবাসী উঠতি লেখিকা শশীবালা অধিকারীর গল্পগ্রন্থ ‘ভুত যাবে যমের বাড়ি’-এর একটি গল্প ‘জেলের বুদ্ধি’ অবলম্বনে শর্টফিল্ম তৈরি হচ্ছে। ছবি নির্মাতা শিবুবাবু জানিয়েছেন, ‘এই ফিল্মটির পরিচালনা করার দায়িত্ব অন্য কাউকে দিইনি। নিজেই করেছি। কারণ, আমি চেয়েছিলাম, সাহিত্য ও সিনেমার মেলবন্ধন। যেটা ভালো পরিচালকের হাতে দিলে হয়তো ছবিটা ভালো হত। কিন্তু সাহিত্যের প্রাণ কতটা থাকতো সে নিয়ে সংশয় ছিল। আমার বিশ্বাস, শুটিং পর্বে সাহিত্যের যে মূল রস, সেটা হয়তো ধরে রাখতে পেরেছি।’ এই ভৌতিক শর্টফিল্মটির চিত্রনাট্যও লিখেছেন স্বয়ং পরিচালক শিবু দাস। মুখ্য অভিনেত্রী শশীবালা অধিকারীর কথায়, ‘ দারুণ অভিজ্ঞতা। ফিল্মটি মুক্তির প্রতীক্ষায় আছি। আশাকরি, সকলের ভালো লাগবে।’

- Advertisement -