পরিযায়ী শ্রমিকদের বাড়ির সামনে বিক্ষোভ

441

রাজীব বসাক, তুফানগঞ্জ: পরিযায়ী শ্রমিকদের বাড়ির সামনে বিক্ষোভ দেখালেন স্থানীয়রা। সোমবার ঘটনাটি ঘটে তুফানগঞ্জের নাককাটিগাছ গ্রাম পঞ্চায়েতের শিকারপুর গ্রামে।

জানা গিয়েছে, ওই গ্রামে বিভিন্ন এলাকায় গতকাল প্রায় তিনশো পরিযায়ী শ্রমিক ফিরেছেন। সরকারি নির্দেশে তাঁদের হোম কোয়ারান্টিনে রাখা হচ্ছে। আর এখানেই উঠছে প্রশ্ন।

- Advertisement -

স্থানীয় বাসিন্দা চৈতন্য কর্মকার, পলান কর্মকার জানান, আমাদের এলাকার পরিযায়ী শ্রমিক ফিরে এসেছেন। তাঁর বাড়িতে স্ত্রী ও পাঁচ সন্তান রয়েছেন। তাঁদের থাকার ঘর মাত্র একটি। এই মুহুর্তে রান্না ঘরে আশ্রয় নিয়েছেন ওই শ্রমিক। স্বাভাবিকভাবেই ওই বাড়িতে সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখা সম্ভব নয়। আমরা চাই তাঁকে সরকারি কোয়ারান্টিন সেন্টারে রাখা হোক। ইতিমধ্যে পরিযায়ী শ্রমিককে ঘিরে চাঞ্চল্য তৈরি হয়েছে এলাকায়। এই নিয়ে গতকাল রাত থেকেই বিভিন্ন এলাকায় পরিযায়ী শ্রমিকের পরিবারের সঙ্গে স্থানীয়দের বচসা শুরু হয়েছে। বিষয়টি তুফানগঞ্জ থানায় জানানো হয়েছে।

আরও পড়ুন: র‍্যাশনের আটা থেকে রাবার জাতীয় পদার্থ বের হওয়াকে কেন্দ্র করে চাঞ্চল্য

পরিযায়ী শ্রমিক ও তাঁর পরিবারের তরফে জানানো হয়, বলেন, ‘আমাদের আনার সময় বিভিন্ন জায়গায় জায়গায় পরীক্ষা করা হয়েছে। তারপর আমাদের বাড়িতে পৌঁছে দিয়েছে পুলিশ। এই নিয়ে প্রতিবেশীরা আতঙ্কিত। গতকাল রাতে প্রতিবেশীরা আমাদের বাড়িতে এসেছিল। তাঁরা আমাকে বাড়িতে থাকতে বারণ করেন। এই অবস্থায় কি করা উচিত বুঝে উঠতে পারছি না।’

প্রশাসন সূত্রে যেটা জানানো হয়েছে, কোয়ারান্টিন সেন্টারগুলিতে শ্রমিক রাখার জায়গা নেই। তাই রাজ্যের বিভিন্ন জেলা থেকে ফিরে আসা শ্রমিকদের হোম কোয়ারান্টিনে থাকার নির্দেশ দিয়েছে রাজ্য সরকার। প্রতিবেশীরা পরিযায়ী শ্রমিকদের বাড়িতে থাকতে বাধা দিচ্ছেন। পরিযায়ী শ্রমিকের পরিবারের তরফে তুফানগঞ্জ থানায় যোগাযোগ করা হয়েছে।

তুফানগঞ্জ থানা সূত্রের খবর, পরিযায়ী শ্রমিকের পরিবার বিষয়টি নিয়ে যোগাযোগ করেছিল। আমরা প্রতিবেশীদের কাছ থেকে আপত্তিপত্র চেয়েছি। তুফানগঞ্জ মহকুমা প্রশাসন সূত্রে বিষয়টি খোঁজ নিয়ে দেখা হবে বলে জানানো হয়েছে।