মধ্যযুগীয় বর্বরতা! পরকীয়ার অভিযোগে যুগলকে বাঁশে বেঁধে পেটালেন স্থানীয়রা

140

ধূপগুড়ি: পরকীয়াকে মান্যতা দিয়েছে সুপ্রিম কোর্ট। যদিও সুপ্রিম নির্দেশিকাকে একপ্রকার বুড়ো আঙুল দেখিয়ে পরকীয়ার বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানোর ঘটনা নতুন কিছু নয়। একইসঙ্গে অন্ত নেই মধ্যযুগীয় বর্বরতারও। বিশেষ করে তার নিদর্শন মিলছে রাজ্যের উত্তরের জেলাগুলিতে। আলিপুরদুয়ারের পর এবার ঘটনাস্থল জলপাইগুড়ি জেলার ধূপগুড়ি। পরকীয়ায় লিপ্ত থাকার অভিযোগে এক যুগলকে বাঁশে বেঁধে বেধরক মারধর করা হয়। খবর পেয়ে ইতিমধ্যে ঘটনাস্থলে পৌঁছে অসুস্থ অবস্থায় ওই যুগলকে উদ্ধার করেছে পুলিশ।

স্থানীয় সূত্রে খবর, পরকীয়ায় লিপ্ত দু’জনেই বিবাহিত। সম্প্রতি সেই খবর প্রকাশ্যে আসতেই এলাকাবাসীরা ওই যুগলের ওপর নজরদারি শুরু করেন। অভিযোগ, ধূপগুড়ি ব্লকের পূর্ব মাগুরমাড়িতে ওই মহিলার বাড়িতে মদের আসর বসত। এই পরিস্থিতিতে মঙ্গলবার স্থানীয়দের নজরে আসে ধূপগুড়ির নীরঞ্জন পাঠের বাসিন্দা ওই যুবক বাড়িতে যান। এরপর এক মূহুর্ত সময় নষ্ট না করে ওই যুগলকে পাকড়াও করেন স্থানীয়রা। ওই যুগলের হাত-পা বেঁধে মারধর করা হয়। একইসঙ্গে গালিগালাজও করা হয় বলে খবর।

- Advertisement -

হাইটেক যুগে মূহুর্তেই সেই মধ্যযুগীয় বর্তরতার ভিডিও ভাইরাল হয় সামাজিক মাধ্যমে। একইভাবে সোশ্যাল মাধ্যমে ভাইরাল হয়েছিল আলিপুরদুয়ারের নির্যাতনের ভিডিও। সেই ঘটনার তদন্তে নেমে একাধিক ব্যক্তিকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। তবে, ধূপগুড়ির ঘটনায় এখনও অবধি কাউকে গ্রেপ্তার করা না হলেও একাধিক ব্যক্তিকে আটক করেছে ধূপগুড়ি থানার পুলিশ। যদিও, খবর লেখা অবধি এই ঘটনায় কোনও অভিযোগ দায়ের হয়নি।