সমস্যার সমাধান না হওয়ায় ভোট বয়কটের ডাক গ্রামবাসীদের

278

গাজোল: গ্রামের বেহাল রাস্তা, ব্রিজ ও নদী ভাঙন সমস্যা নিয়ে ভোট বয়কটের ডাক দিলেন গ্রামবাসীরা। নতুন বছরে গ্রামে পোস্টার পড়ল ভোট বয়কটের ডাক নিয়ে। গাজোল ব্লকের চাকনগর অঞ্চলের প্রত্যন্ত গ্রাম মাথামোড়া, ডুবা খোকশন, বৈরডাঙি ও কদুবাড়ি। দীর্ঘদিন ধরে সমস্যায় রয়েছেন এলাকাবাসী। ভোট আসে, ভোট যায়, নেতা ও ভোট প্রার্থীদের প্রতিশ্রুতিগুলি শুধু রয়ে যায়। প্রতিবছর ভোটের সময় গ্রামবাসীদের প্রতিশ্রুতি মিললেও এলাকার রাস্তাঘাট ও নদী ভাঙনের সমস্যাগুলি রয়ে যায়। পাশাপাশি এলাকায় টাঙন নদীর উপর ব্রিজের দাবিও করেছিলেন তাঁরা। কিন্তু এখনও পর্যন্ত কোনও কাজ হয়নি। নানারকম সমস্যা নিয়ে ভোট বয়কটের ডাক দিয়েছেন চারটি গ্রামের বাসিন্দারা। এ নিয়ে ভোট বয়কট কমিটিও গঠন করা হয়েছে। বেশ কয়েকদিন আগে ভোট বয়কট নিয়ে একটা সভা ডেকেছিলেন গ্রামবাসীরা। সেখানে ৩১ জনের একটি কমিটি তৈরি করা হয়েছে বলে জানা গিয়েছে। যার আহ্বায়ক বিজয় বিশ্বাস এবং সহায়ক মনোরঞ্জন সরকার (মনু)। নতুন বছরে গ্রামে ভোট বয়কটের ডাক দিয়ে পোস্টার দেন গ্রামবাসীরা।

গ্রামবাসী নিখিল সরকার ও সুনীল মজুমদাররা বলেন, ‘দীর্ঘদিন ধরে এলাকায় বসবাস করে আসছি। আমাদের গ্রামগুলিতে অনেক সমস্যা রয়েছে। অধিকাংশ রাস্তাই কাঁচা। তেমনভাবে এলাকায় পাকা রাস্তা তৈরি হয়নি। গ্রাম থেকে গাজোল হাসপাতালে রোগী নিয়ে যেতে ভীষণ সমস্যার সম্মুখীন হতে হয়। সঠিক চিকিৎসা সময় মতো না পাওয়ার জন্য অনেকের মৃত্যু হয়েছে। পাশাপাশি প্রসূতি মায়েদের প্রসব যন্ত্রণা হলে তাঁদের হাসপাতালে নিয়ে যেতে অনেকটা সময় লেগে যায় এবং প্রসূতি মায়ের জীবনের ঝুঁকি থেকেই যায়। পাশাপাশি কখনও কোনও গ্রামবাসীকে সাপে কামড়ালে তাকে সঠিক সময়ে গাজোল হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া সম্ভব হয় না। এতে রাস্তাতেই রোগীর মৃত্যু হয়। এলাকায় টাঙন নদী রয়েছে সেখানে ব্রিজের দাবি থাকলেও এখনও তা হয়ে ওঠেনি। পাশাপাশি নদী ভাঙনের সমস্যা রয়েছে। বর্ষাকালে নদী ভাঙনে এলাকার জমির ফসল নষ্ট হয়ে যায় এবং এলাকা জলমগ্ন হয়ে পড়ে। প্রতিবছরই বর্ষার সময় আতঙ্কে থাকতে হয় চাষিদের।

- Advertisement -

গ্রামেই তৈরি করা হয়েছে ভোট বয়কট কমিটি। মাথা মোড়া গ্রামের বিজয় বিশ্বাস জানান, ‘জেলাশাসক দপ্তরে তিন দফা দাবি নিয়ে একটি স্মারকলিপি দেওয়া হয়েছে। সেখানে উল্লেখ করা হয়েছে, গাজোলের ডোবাখোকসন ঘাটে টাঙন নদীর উপর ব্রিজ, টাঙন নদীর পশ্চিম ধার দিয়ে ভাঙন হয় প্রতিবছরই। নদীর পশ্চিম ধার দিয়ে ভাঙন রোধে ডুবা খোকসন বুথে বাঁধ কাম রোড এবং গ্রামগুলির বিভিন্ন বুথের রাস্তাগুলি পাকা করার দাবি তুলেছেন গ্রামবাসী। এলাকার বেশ কিছু নাগরিকবৃন্দ স্বাক্ষর করে তিন দফা দাবিতে আবেদন জানিয়েছেন জেলাশাসকের কাছে।

এ বিষয়ে গাজোলের বিডিও উষ্ণাতা মোক্তানকে ফোনে জিজ্ঞাসা করা হলে তিনি বলেন, ‘বিষয়টি আমি শুনেছি। আমি একটু ব্যস্ত রয়েছি। এ বিষয়ে পরে কথা বলব।’