বেহাল রাস্তার প্রতিবাদে ভোট বয়কটের ডাক এলাকাবাসীর

139

রায়গঞ্জ: বেহাল রাস্তার প্রতিবাদে রায়গঞ্জ পুরসভার ২৭ নম্বর ওয়ার্ডে রাস্তা অবরোধ করে ভোট বয়কটের ডাক দিলেন এলাকাবাসীরা। শুক্রবার সকাল থেকে রায়গঞ্জের দেবীনগরের বেলতলা মোড় থেকে মহারাজা স্কুলের মোড় পর্যন্ত রাস্তা আটকে বিক্ষোভ দেখান তাঁরা। অভিযোগ, পাঁচ বছর হল রাস্তা সংস্কার না হওয়ায় সামান্য বৃষ্টি হলেই জল জমে যায় এলাকায়। প্রতিবার ভোট আসলেই রাজনৈতিক দলের নেতারা প্রতিশ্রুতি দেন, কিন্তু ভোটের পর আর তাদের খোঁজ মেলে না। আন্দোলনকারীরা জানান, রাস্তা না করে দিলে তাঁরা অবরোধ করে রাখবেন এবং ভোট দেবেন না।

আন্দোলনকারী সুলেখা রায় জানান, ভোটের আগে রাস্তা না করে দিলে রাস্তাও খুলব না, ভোট ও দিব না। কারণ প্রতিবার ভোটের আগে রাস্তার প্রতিশ্রুতি দিয়ে ভোট নিয়ে যান, তারপর আর দেখা মেলে না। দিলিপ রায় জানান, দীর্ঘদিন ধরে রাস্তা সংস্কার হচ্ছে না। সামান্য বৃষ্টি হলেই ঘরে জল ঢুকে যাচ্ছে। কাউন্সিলর কোনও উদ্যোগ নিচ্ছেন না। অথচ এই রাস্তায় রয়েছে কয়েকটি স্কুল,হাট। এর আগে রাস্তার পাথর ছিটকে গিয়ে মুখে লেগে দুর্ঘটনা ঘটেছে। তাই আজ রাস্তা অবরোধ করে ভোট বয়কটের ডাক দিয়েছি। লিখিত প্রতিশ্রুতি না পেলে অবরোধ থাকবে।

- Advertisement -

বিক্ষোভ চলাকালীন এলাকায় প্রচারে আসেন বিজেপি প্রার্থী কৃষ্ণ কল্যাণী। তিনি জানান, এখানে ড্রেনেজ সিস্টেম না থাকায় জল জমে যাচ্ছে। ফলে রাস্তার পিচ উঠে গিয়ে গর্তের সৃষ্টি হচ্ছে। আগে ড্রেনের ব্যবস্থা করা হলে এই সমস্যা হত না। কোনও মাস্টার প্লান নেই পুরসভার। আমি জয়ী হলে এবং আমাদের সরকার ক্ষমতায় আসলে এধরণের সমস্যা থাকবে না। কাটমানির সরকার এবং কাটমানির কাউন্সিলর আর থাকবে না।

কাউন্সিলর প্রসেঞ্জিৎ সরকার জানান, এই রাস্তাটি পঞ্চায়েতের হলেও রায়গঞ্জ পুরসভা দেখভাল করে। খুবই গুরুত্বপূর্ণ রাস্তা। কয়েকটি স্কুল, লাইব্রেরী, গার্লস হস্টেল রয়েছে এই রাস্তায়। আমরা এই রাস্তার জন্য বড় প্রজেক্ট নিয়েছি। ভোটের পর কাজ শুরু হবে। এর আগে ড্রেনের কাজ শুরু করতে গিয়ে আমরা বাধাপ্রাপ্ত হয়েছি কারণ কেউ জায়গা ছাড়তে রাজি নন। যারা আজ অবরোধ করেছেন তাঁরা রাজনৈতিক স্বার্থে। যদি অবরোধ না তোলে প্রশাসন তার ব্যবস্থা নেবে।