পর্যটনে এবার আশার আলো দেখাচ্ছে নিহালি বিল

150

দীপঙ্কর মিত্র, রায়গঞ্জ: নিহালি বিলি। রায়গঞ্জ ব্লকের টেনহরি গ্রামে প্রায় সাড়ে তিনশো বিঘা জমি জুড়ে অবস্থান এই বিলের। বছরভর সেই পুকুরে চাষ হয় মাছ। অন্যদিকে প্রাকৃতিক শোভা বাড়িয়ে বিলে দেখা মেলে পদ্ম ফুলের। এখানেই শেষ নয়, আমজনতা থেকে শুরু করে পর্যটকদের নজর কাড়তে শীতের মরশুমে বিলের চর্তুর্দিকে অন্তত পক্ষে ৫০ থেকে ৬০ প্রজাতির পাখির আনাগোনা হয়। ফলত ওই বিলকে কেন্দ্র করে পর্যট কেন্দ্র গড়ে তোলার দাবিতে সুর চড়াতে শুরু করেছেন স্থানীয়রা।

এখনও সরকারের তরফে কোনও উদ্যোগ গৃহীত না হলেও ইতিমধ্যে অঘোষিত পর্যটন কেন্দ্রে পরিণত হয়েছে নিহালি বিল। স্থানীয়রা জানিয়েছে, বছরের বিভিন্ন সময় এই বিলে আনাগোনা চলতে থাকে পর্যটকদের। দূর-দূরান্ত থেকে ঢল নামে পর্যটকদের। সংক্রমণ মোকাবিলায় রাজ্য়ের তরফে কড়া বিধিনিষেধ লাগু থাকলেও প্রকৃতির অনাবিল সৌন্দর্য্য উপভোগ করতে বহু মানুষের ভীর জমে সেখানে।

- Advertisement -

স্থানীয়দের দাবি, টেনহরি গ্রামকে কেন্দ্র করে পর্যটন কেন্দ্র গড়ে ওঠার সম্ভাবনা রয়েছে। শুধু নিহালি বিল নয়, ঐতিহাসিক দৃষ্টিকোণ থেকেও অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ টেনহরি গ্রাম। গ্রামে রয়েছে বহু ঐতিহাসিক নিদর্শনও। ঘটনা প্রসঙ্গে স্থানীয়দের মন্তব্য, এখানে পর্যটন কেন্দ্র গড়ে উঠলে আয়ের বিকল্প পথ উন্মুক্ত হবে।

গৌড়ি গ্রাম পঞ্চায়েতের উপপ্রধান তৈয়ব আলি জানান, নিহালি বিলে সারা বছর মাছ চাষ হয়। রাস্তাঘাট ভালো হয়ে যাওয়ায় প্রতিদিন এই বিলের প্রাকৃতিক সৌন্দর্য উপভোগ করতে বহু মানুষের আনাগোনা হয় সেখানে। সরকার যদি উদ্যোগ নেয় তবে এলাকার আরও উন্নয়ন হবে।