গ্যালারি নির্মাণের খোঁড়া গর্তে দুর্ঘটনার আশঙ্কা, দ্রুত কাজ শুরুর দাবি স্থানীয়দের

123

গয়েরকাটা: গতবছর জুন মাসে গয়েরকাটা ফুটবল ময়দানে প্রায় ৩২ লক্ষ টাকা ব্যয়ে গ্যালারি নির্মাণের কথা ঘোষণা করেছিল জলপাইগুড়ি জেলার সাঁকোয়াঝোরা-১ গ্রাম পঞ্চায়েত কর্তৃপক্ষ। এরপর কিছুদিন প্রশাসনিক টালবাহানার পর বিধানসভা ভোটের আগে নির্দিষ্ট এজেন্সির মাধ্যমে গ্যালারির নির্মাণ কাজ শুরু করে গ্রাম পঞ্চায়েত কর্তৃপক্ষ। কিন্তু গ্যালারি নির্মাণের জন্য প্রয়োজনীয় পিলারের গর্ত খুঁড়েই বন্ধ হয়ে যায় সেকাজ। প্রায় দু’আড়াই মাস ধরে বন্ধ রয়েছে সেই গ্যালারি নির্মাণের কাজ। যদিও নির্বাচনি বিধিনিষেধ ও লকডাউনকেই কাজ বন্ধের কারণ হিসেবে দায়ী করেছেন কর্তৃপক্ষ। এদিকে গর্ত খোঁড়ার পর নির্মাণ কাজ বন্ধ থাকায় গর্তে পড়ে দুর্ঘটনা ঘটতে পারে বলে মনে করছেন এলাকাবাসী।

লকডাউনের কারণে গয়েরকাটা ফুটবল ময়দানে খেলাধুলো সেভাবে হয় না। লকডাউন শেষ হলেই খেলতে গিয়ে দুর্ঘটনার সম্ভাবনা রয়েছে। মাঠের যে অংশে গ্যালারি নির্মাণের জন্য গর্ত খোঁড়া হয়েছে সেখান দিয়ে গয়েরকাটা গার্লস হাইস্কুলের পেছনের পাড়ার অনেক মানুষই রাতে যাতায়াত করেন। যাতায়াত করতে গিয়ে সাধারণ মানুষ দুর্ঘটনার কবলে পড়তে পারেন। তাই দ্রুততার সঙ্গে এই গ্যালারির নির্মাণের কাজ শুরুর দাবি জানিয়েছেন এলাকাবাসী।

- Advertisement -

গয়েরকাটা নাগরিক উন্নয়ন মঞ্চের সভাপতি ওম প্রকাশ সারোগী বলেন, ‘গ্যালারি নির্মাণের জন্য যে গর্ত খুঁড়ে রাখা হয়েছে অন্ধকারে সেই গর্তে পড়ে মানুষ আঘাতপ্রাপ্ত হতে পারেন। তাই গ্রাম পঞ্চায়েতের কাছে অনুরোধ জানাচ্ছি যাতে দ্রুততার সঙ্গে নির্মাণ কাজ শুরু করা হয়। মানুষ যাতে আঘাতপ্রাপ্ত না হয় তার বিকল্প ব্যবস্থা করতে হবে।’ সাঁকোয়াঝোরা-১ গ্রাম পঞ্চায়েতের নির্মাণ সহায়ক বিপুল চন্দ বলেন, ‘লকডাউন শেষ হলেই গ্যালারির কাজ শুরু হবে।’ গ্রাম পঞ্চায়েতের প্রধান বিনোদ ওরাওঁ বলেন, ‘নির্বাচনি বিধিনিষেধ ও লকডাউনের কারণে সেভাবে কাজ করা যায়নি। এবিষয়ে এজেন্সির সঙ্গে কথা বলে কাজ শুরুর ব্যবস্থা করা হবে।’