বৃহস্পতিবার থেকে ৭ দিনের লকডাউন বীরপাড়ায়

492
File Photo

মোস্তাক মোরশেদ হোসেন, বীরপাড়া: করোনা সংক্রমণ বেড়ে চলেছে আলিপুরদুয়ার জেলার বীরপাড়ায়। ফের করোনায় আক্রান্ত হলেন এক ব্যবসায়ী। বুধবার ওই রিপোর্ট পাওয়ার পরই করোনা সংক্রমণ রুখতে বীরপাড়ায় সাতদিনের জন্য লকডাউন করার সিদ্ধান্ত নিল পুলিশ প্রশাসন।

বুধবার বীরপাড়া থানায় এ বিষয়ে একটি বৈঠক করা হয়। বীরপাড়ার সিআই(সার্কেল ইন্সপেক্টর) অমরেশ সিং বলেন, ‘বৃহস্পতিবার ভোর পাঁচটা থেকে লকডাউন শুরু হবে। সাতদিন ধরে চলবে লকডাউন। সাতদিন দোকানপাট এমনকি সবজি বাজারও বন্ধ থাকবে বীরপাড়ায়।’ বীরপাড়া ১ নম্বর গ্রাম পঞ্চায়েতের প্রধান রমেশ মণ্ডল বলেন, ‘পরিস্থিতি যেদিকে যাচ্ছে তাতে লকডাউন ঘোষণা করা ছাড়া আর কোনও উপায়ই ছিল না।’

- Advertisement -

মাদারিহাট বীরপাড়া ব্লক স্বাস্থ্য দপ্তর সূত্রে খবর, লালার নমুনায় করোনার অস্তিত্ব মেলার পর বুধবার সকালে বীরপাড়ার ওই ব্যবসায়ীকে তপসিখাতার কোভিড হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। প্রসঙ্গত, পেশায় ব্যবসায়ী ওই ব্যক্তি হাসিমারার এক করোনা রোগীর সংস্পর্শে আসেন। দুজনে একসঙ্গে ব্যবসা করতেন। হাসিমারার ওই ব্যক্তির রিপোর্ট পজিটিভ আসার পর বীরপাড়ার ওই ব্যক্তির লালার পরীক্ষা করা হয়। এদিন মোবাইল ফোনে ওই ব্যক্তি বলেন, ‘আমার তো জ্বর, সর্দি, কোনও কিছুই হয়নি। তবে লালার পরীক্ষার রিপোর্ট আসার পরই স্বাস্থ্য দপ্তরের তরফে আমাকে কোভিড হাসপাতালে নিয়ে আসা হয়েছে।’ স্বাস্থ্য দপ্তর সূত্রে খবর, করোনা পজিটিভদের সিংহভাগই এ ধরনের অ্যাসিমটোমেটিক।

প্রসঙ্গত, এ নিয়ে বীরপাড়ায় মোট ছয়জন করোনায় আক্রান্ত হলেন। এদিন বীরপাড়ার পুরোনো বাসস্ট্যান্ড সংলগ্ন ওই এলাকাটিকে এদিন কনটেনমেন্ট জোন হিসেবে ঘোষণা করার পর ওই এলাকায় যাওয়ার পথটি বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। তবে, এখনও পর্যন্ত বীরপাড়ার বাসিন্দাদের অনেককেই সচেতন হতে দেখা যাচ্ছে না বলে অভিযোগ এলাকাবাসীর অনেকেরই। যেমন, বাঁশের ব্যারিকেড দিয়ে কনটেনমেন্ট জোনগুলিতে ঢোকা ও বের হওয়ার পথগুলি বন্ধ করে দেওয়ার পরও বাঁশের ব্যারিকেড ডিঙিয়ে বা তলা দিয়ে কনটেনমেন্ট জোনে লোকজনকে ঢুকতে দেখা গিয়েছে।