রেড জোনে লকডাউনের ছবি, প্রশাসনিক সদিচ্ছা নিয়েই প্রশ্ন উঠছে 

314

রাজশ্রী প্রসাদ, পুরাতন মালদা: পাঞ্জা কষছে করোনা সংক্রমণ। সপ্তাহ দুয়েক আগে গ্রিন জোনে থাকা মালদা জেলা এখন রেড জোনে (রাজ্যের নিরিখে অরেঞ্জ জোন)।

সেখানে আক্রান্তের সংখ্যা তিন। কনটেইনমেন্ট জোনের সংখ্যাও তিন। বাড়ছে সংক্রমণের আশঙ্কা, বাড়ছে উদ্বেগ। অথচ লকডাউনের আইন কার্যকর করার দায়িত্ব যাদের কাঁধে ন্যস্ত, উদাসীনতা লক্ষ্য করা যাচ্ছে সেই পুলিশ ও প্রশাসনের তরফেই।

- Advertisement -

লকডাউনের সময়ও পুরাতন মালদার ভাবুক গ্রাম পঞ্চায়েতের আট মাইলের হাটে যেভাবে ক্রেতা-বিক্রেতার ঢল নামল, আর যেভাবে স্যোশাল ডিস্ট্যান্সিং-এর বিধিকে কাঁচকলা দেখিয়ে কেনাবেচা চলল তাতে চোখ কপালে ওঠার যোগার।

প্রতি সপ্তাহে সোম ও শুক্রবার হাট বসে আটমাইলে। জেলার বিভিন্ন হাট একরকম বন্ধ থাকলেও এর আগেও ওই হাটে রীতিমতো কেনাবেচা চলেছে। তবে সে সবকিছুকে ছাপিয়ে গেল আজকের হাট।

রেড জোনে লকডাউনের ছবি, প্রশাসনিক সদিচ্ছা নিয়েই প্রশ্ন উঠছে | Uttarbanga Sambad | Latest Bengali News | বাংলা সংবাদ, বাংলা খবর | Live Breaking News North Bengal | COVID-19 Latest Report From Northbengal West Bengal India

এদিন সকাল থেকেই হাটুরে ও পসারিদের মাত্রাছাড়া ভিড় দেখা যায় হাটে। একটু বেলা বাড়তেই হাজারো মানুষের ভিড় দেখা যায়। শুধু সবজি বা মুদির দোকান নয়, জামাকাপড়, জুতা, পানবিড়ি সমেত সবরকম জিনিসের পসরা সাজিয়ে বসেছিলেন বিক্রেতারা। আর সেগুলিতে ক্রেতাদের ভিড় উপচে পড়তে দেখা যায়। স্যোশাল ডিস্ট্যান্সিং-এর কোনও বিধি যেমন মানা হচ্ছিল না, তেমনই বেশিরভাগ ক্রেতা বা বিক্রেতার মুখে ছিল না মাস্ক। যত্রতত্র, থুতু, পানের পিক ফেলার ছবিও ধরা পড়ে। সংক্রমণ ছড়ানোর সম্ভাবনা হাটের আনাচে-কানাচে নজরে পড়ে। অথচ পুলিশ বা প্রশাসনের তরফে লকডাউন বিধি কার্যকর করার প্রয়াস দূরে থাক, সামান্য নজরদারি চালানোর কোনও চেষ্টাও দেখা গেল না বলে অভিযোগ।

আটমাইল বাসস্ট্যান্ডে নামমাত্র দু-তিনজন সিভিক ভলান্টিয়ার থাকলেও তাঁদের তরফে হাজার হাজার মানুষের ভিড় সামাল দেওয়া যে সম্ভব নয় তা বলাই বাহুল্য। অতএব তাঁরা হাটের পথ মারাতে সাহস করেননি। ৩৪ নম্বর জাতীয় সড়কের একেবারে গা ঘেঁষে ওই হাট। সড়ক দিয়ে মালদা থানা ও জেলা পুলিশের পদস্থ আধিকারিকদের গাড়ি এবং টহলদারি ভ্যানের নিয়মিত যাতায়াত থাকলেও হাটের ভিড় নজরে পড়েনি কারও। যেখানে পুলিশ প্রশাসনের এমন উদাসীনতা সেখানে লকডাউন বিধিকে আমজনতার অনেকেই যে কাঁচকলা দেখাবেন তাতে আর আশ্চর্যের কী? আট মাইলের হাটের শুক্রবারের ছবি সেই অপ্রিয় সত্যটাকেই সামনে আনল বলে মনে করা হচ্ছে।
অবশ্য এই বিষয়ে জেলা পুলিশ সুপার জানান, সরকারি নির্দেশ মোতাবেক একটু একটু করে বাজারে স্বাভাবিকতা ফেরানো হচ্ছে। তবে স্যোশাল ডিস্ট্যান্সিং-এর বিধি মেনে সকলকে অবশ্যই চলতে হবে।