লকডাউনের পথে বাংলাদেশ, সতর্ক ভারতীয় ট্রাক চালকেরা

74

চ্যাংরাবান্ধা: সংক্রমণ মোকাবিলায় আগামী সাতদিনের জন্য় লকডাউন জারি হতে চলেছে বাংলাদেশে। বিশেষ সূত্রের খবর, সোমবার সকাল থেকে লকডাউন কার্যকর হবে। তবে পরিস্থিতির নিরিখে লকডাউন কার্যকরের তারিখ পিছিয়ে নেওয়া হতে পারে বলেও খবর। বাংলাদেশে লকডাউন জারি হওয়ার বিষয় প্রকাশ্যে আসতেই কোচবিহার জেলার চ্যাংরাবান্ধা সীমান্ত বাণিজ্য কেন্দ্র হয়ে চলাচল করা ট্রাক চালকেরা করোনা বিধি মেনে আগাম সতর্কতা অবলম্বন করতে শুরু করেছেন।

লকডাউনের পথে হাঁটতে চলেছে বাংলাদেশ সরকার। বৈদেশিক বাণিজ্যের উপর লকডাউনের প্রভাব পড়বে কিনা এনিয়ে ব্যবসায়ী মহলে নানা প্রশ্ন ঘুরপাক খেতে শুরু করেছে। ব্যবসায়ীদের একাংশ মনে করছেন, লকডাউন পরিস্থিতিতে বাণিজ্যের ক্ষেত্রে ওই দেশে নিয়ম কানুনের কড়াকড়ি হতে পারে। ইতিমধ্যে বাংলাদেশের বিভিন্ন ব্যবসায়ী সংগঠনের তরফে ভারতীয় ব্যবসায়ীদের কেছে লকডাউন জারির সম্ভাবনার বিষয়ে বার্তা পাঠানো হয়েছে। সেখানে করোনা সতর্কতায় সচেতনতার কথা বলা হয়েছে বলে সূত্রের খবর।যদিও লকডাউন জারি হলে এবার আন্তর্জাতিক বাণিজ্যের ক্ষেত্রে কি কি নিয়ম জারি হবে কিনা ইত্যাদি বিষয়গুলি এখনও স্পষ্ট নয় বলে ব্যবসায়ীরা জানিয়েছেন।

- Advertisement -

এদিকে পড়শি দেশে লকডাউন জারির সম্ভবনার খবর ছড়িয়ে পড়তেই ভারত থেকে বাংলাদেশে পণ্য নিয়ে যাওয়া ট্রাক চালকদেরও আগাম সচতেনতা অবলম্বন করতে দেখা গিয়েছে। বেড়েছে মাস্ক, গ্লাভস স্য়ানিটাইজারের ব্যবহার। ট্রাক চালকেরা জানিয়েছেন, শনিবার থেকে পণ্য নিয়ে বাংলাদেশে যাওয়ার সময় ওই দেশের প্রশাসনের তরফে মাস্ক, স্যানিটাইজার ব্যবহারের বিষয় খতিয়ে দেখা হচ্ছে গুরুত্ব সহরকারে। ভিন দেশে গিয়ে যাতে কোনও সমস্যায় পড়তে না হয় তাই আমরা আগাম সতর্কতা অবলম্বন শুরু করেছি।

চ্যাংরাবান্ধা এক্সপোর্টার্স অ্যাসোসিয়েশনের সম্পাদক বিমল কুমার ঘোষ বলেন, ‘এনিয়ে কোনও প্রকার নির্দেশিকা আমাদের কাছে এসে পৌঁছায়নি। যদিও যাবতীয় স্বাস্থ্যবিধি সম্পর্কে আমরাও সর্বদা সচেতন রয়েছি।’