শিশিরের বাড়িতে লকেটের মধ্যাহ্নভোজ

115

কলকাতা: ২৪ মার্চ কাঁথিতে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সভায় উপস্থিত হওয়ার জন্য কাঁথির তৃণমূল সাংসদ শিশির অধিকারীকে আমন্ত্রণ জানালেন বিজেপি সাংসদ লকেট চট্টোপাধ্যায়। শনিবার লকেট কাঁথিতে প্রধানমন্ত্রীর সফরের প্রস্তুতি খতিয়ে দেখতে গিয়েছিলেন। সেখান থেকেই তিনি শান্তিকুঞ্জে গিয়ে শিশিরবাবুকে আমন্ত্রণ জানিয়ে আসেন। তবে শুভেন্দু অধিকারীর ভাই তথা তমলুকের সাংসদ দিব্যেন্দু অধিকারীকে পৃথকভাবে আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে কি না, তা নিয়ে অবশ্য এদিন কোনও পক্ষই মুখ খোলেননি। শিশিরবাবু কাঁথিতে প্রধানমন্ত্রীর সভায় হাজির হবেন কি না, তা এদিন নিশ্চিত করেননি। তবে লকেটকে আপ্যায়নের ব্যাপারে কোনও ত্রুটি রাখেননি শিশিরবাবু। ভাত, উচ্ছেভাজা, লাউ-চিংড়ি, চিকেন কষা, পাঁঠার মাংসের ঝোল, চাটনি ও পাঁপড় সহযোগে মধ্যাহ্নভোজের ব্যবস্থা ছিল লকেটের জন্য।

শিশিরবাবু এখনও পূর্ব মেদিনীপুর জেলা তৃণমূলের চেয়ারম্যান এবং তৃণমূলের সাংসদ। তাঁর মেজছেলে দিব্যেন্দুও তৃণমূল সাংসদ। তবে শুভেন্দু দল ছেড়ে গেরুয়া শিবিরে যোগ দেওয়ার পর তৃণমূল নেতৃত্ব যেভাবে তাঁকে ও তাঁর পরিবারকে আক্রমণ করেছে, তা নিয়ে শিশিরবাবু ব্যাপক ক্ষুব্ধ। এনিয়ে তিনি প্রকাশ্যেই তাঁর ক্ষোভের কথা জানিয়েছিলেন। তবে শিশিরবাবু প্রধানমন্ত্রীর সভায় হাজির হলে তা রাজ্য রাজনীতিতে অন্য মাত্রা আনবে বলেই রাজনৈতিক মহল মনে করছে।

- Advertisement -

এদিন লকেট বলেন, ‘শিশিরবাবু পূর্ব মেদিনীপুর জেলার একজন প্রবীণ রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব। তাঁকে আমন্ত্রণ জানিয়েছি। তাঁর সঙ্গে দেখা করার সুযোগ পেয়ে আমি নিজেকে ধন্য মনে করছি।‘ তবে শিশিরবাবু ওই সভায় হাজির হবেন কি না, তা নিয়ে লকেট কোনও মন্তব্য করেননি। অন্যদিকে শিশিরবাবু বলেন, ‘আমার ছেলে বিজেপি করে। আমার বাড়িতে বিজেপি নেতারা আসতেই পারেন। এর মধ্যে অন্যায় তো কিছু নেই।‘