পরিযায়ী শ্রমিক রূপে পূজিতা হচ্ছেন মা দুর্গা

0
456
- Advertisement -

উত্তরবঙ্গ সংবাদ ডিজিটাল ডেস্ক: বেহালার বড়িশা ক্লাবের পুজো মণ্ডপে পরিযায়ী শ্রমিক রূপে পূজিতা হচ্ছেন মা দুর্গা। কৃষ্ণনগরের শিল্পী পল্লব ভৌমিক পরিযায়ী শ্রমিকের আদলে দেবী দুর্গার মূর্তি তৈরি করেছেন। লকডাউনের পর পরিযায়ী শ্রমিকদের দুর্দশার চিত্র পুজো মণ্ডপে ফুটিয়ে তোলা হয়েছে।

করোনা সংক্রমণ শুরুর পর দেশে ২৪ মার্চ লকডাউন জারি হয়েছিল। হঠাৎ করে লকডাউন শুরু হওয়ায় সমস্যায় পড়েন দেশের নানা প্রান্তে ছড়িয়ে ছিটিয়ে থাকা পরিযায়ী শ্রমিকরা। তাঁরা যেকোনও উপায়ে বাড়ি ফেরার চেষ্টা করেন। কেউ হেঁটে আবার কেউ কয়েকশো কিলোমিটার সাইকেল চালিয়ে বাড়ির পথে পা বাড়ান। বাড়ি ফেরার পথে দুর্ঘটনার কবলে পড়ে মৃত্যু হয়েছে অনেক শ্রমিকের।

বাচ্চা কোলে কিলোমিটারের পর কিলোমিটার হেঁটে অনেক মহিলা পরিযায়ী শ্রমিকের বাড়ি ফেরার ছবি আমরা দেখেছি। দেখা গিয়েছে, সুটকেসের উপর ঘুমন্ত সন্তানকে মায়ের টেনে নিয়ে যাওয়ার ছবিও। পরিযায়ী শ্রমিকদের দুর্দশা ও কাজ হারিয়ে ত্রাণের জন্য হাহাকারই এবার কলকাতার বেহালার বড়িশা ক্লাবের পুজোর থিম। যেখানে মা দুর্গাকে একজন পরীযায়ী শ্রমিকের আদলে গড়ে তোলা হয়েছে। মায়ের কোলে কার্তিক, পাশাপাশি দুই মেয়ে লক্ষ্মী ও সরস্বতী হেঁটে যাচ্ছে। নীচে রয়েছে গণেশ।

দেবী ও তাঁর দুই মেয়ের হেঁটে চলা দেখে মনে হচ্ছে, ঠিক যেন একজন মহিলা পরিযায়ী শ্রমিক তাঁর ছেলে মেয়েকে নিয়ে বাড়ির পথে চলেছেন। সেইসঙ্গে মণ্ডপে ত্রাণের বিষয়টিও ফুটিয়ে তোলা হয়েছে। লকডাউনের কারণে প্রচুর পরিযায়ী শ্রমিক কাজ হারান। কাজ হারিয়ে তাঁরা ভিনরাজ্য থেকে বাড়ি ফেরেন। পরিবারের সদস্যদের মুখে দুমুঠো অন্ন তুলে দিতে তাঁদের ভরসা করতে হয় সরকারি ত্রাণের ওপর। গোটা বিষয়টি মণ্ডপে খুব সুন্দরভাবে শিল্পকলার মাধ্যমে তুলে ধরেছেন শিল্পী পল্লব ভৌমিক।

- Advertisement -