রায়গঞ্জ পাখিরালয়ের আকর্ষণের কেন্দ্রবিন্দু এখন ম্যাকাউ

84

রায়গঞ্জ: ম্যাকাও নামটি কমবেশি সবার কাছেই পরিচিত একটি নাম। পাখি জগতে সবচেয়ে বড় আকৃতির এই তোতা পাখিটি তার বর্ণীল পালক, বুদ্ধিমত্তা এবং কথা বলার জন্য বেশ খ্যাতনামা। এদের বসবাস মূলত সেন্ট্রাল আমেরিকা, সাউথ আমেরিকার রেইন ফরেস্ট এবং আমাজন নদীতে। সম্প্রতি এই ম্যাকাউ উদ্ধার হয়েছে বালুরঘাট থেকে। তাও একজোড়া। এই ম্যাকাউ জোড়া বর্তমানে রায়গঞ্জের কুলিক পাখিরালয়ের আকর্ষণের কেন্দ্রবিন্দু হয়ে উঠেছে। নয়া এই অতিথিদের দেখতে ইতিমধ্যেই ভিড় জমিয়েছেন পর্যটকেরা। বনদপ্তর সূত্রে জানা গিয়েছে, চোরা পথে বিক্রির উদ্দেশ্যে নিয়ে যাওয়ার সময় বালুরঘাট থেকে এই পাখি দু’টি উদ্ধার করা হয়েছে।

কুলিক পাখিরালয়ের এক আধিকারিক জানান, ম্যাকাও বিদেশি পাখি। সচরাচর এই দিকে দেখা যায় না।বালুরঘাট থেকে উদ্ধার হওয়া এই পাখিগুলি আমাদের এখানে নিয়ে আসা হয়েছে। যারা পাখি সম্পর্কে জানেন তাঁরা দেখার জন্য ভিড় করছেন। পাখিপ্রেমী শুভ্র শঙ্কর নাগের কথায়, স্কারলেট ম্যাকাও পাখি হচ্ছে ম্যাকাও প্রজাতির বিভিন্ন পাখিগুলির মধ্যে সবচেয়ে সুন্দর পাখি। বাহারী রং পাখিটিকে অন্যান্য পাখির থেকে বেশ আকর্ষনীয় করে তোলে। উদ্ধার হওয়া ম্যাকাওটি কোন প্রজাতির তা এখন বলা যাচ্ছে না।

- Advertisement -