ক্রোয়েশিয়ায় জোরালো ভূমিকম্পে মৃত ৬

185

জাগরেব: জোরালো ভূমিকম্পে কেঁপে উঠল ক্রোয়েশিয়া। রিখটার স্কেলে কম্পনের মাত্রা ছিল ৬.২। ভূমিকম্পে মৃত্যু হয়েছে ৬ জনের।
ন্যাশনাল সেন্টার ফর সিসমোলজির দেওয়া তথ্য অনুযায়ী, মঙ্গলবার বিকাল ৪টা ৪৯ মিনিট নাগাদ ভূমিকম্প অনুভূত হয়। ভূমিকম্পের উৎসস্থল রাজধানী জাগরেব থেকে ৪২ কিলোমিটার দক্ষিণ থেকে দক্ষিণ পূর্বে। ভূমিকম্পের গভীরতা ভূপৃষ্ঠ থেকে ১০ কিলোমিটার গভীরে।

- Advertisement -

ভূমিকম্পে তাসের ঘরের মতো হুড়মুড়িয়ে ভেঙে পড়ে বাড়িঘর। আতঙ্কিত লোকজন ঘর ছেড়ে বাইরে বেরিয়ে আসেন। ভূমিকম্পে এখনও পর্যন্ত ৬ জনের মৃত্যুর খবর পাওয়া গেলেও আহত হয়েছেন বেশ কয়েকজন। মৃতদের মধ্যে এক কিশোরীও রয়েছে। হতাহতের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে বলে মনে করা হচ্ছে। ক্রোয়েশিয়ার প্রতিবেশী বসনিয়া, সার্বিয়া ছাড়াও আরও দূরে অস্ট্রিয়ার রাজধানী ভিয়েনা এমনকি ইতালিতেও কম্পন অনুভূত হয়েছে। ভূমকম্প প্রবণ হলেও এত বড় মাপের কম্পন এর আগে কখনও সেখানে হয়নি। ১৯৯০ সালে একবার বড় ভূমিকম্প হয়েছিল। তার পরে আর তেমন ভূমিকম্প দেখা যায়নি এই দেশটিতে। উদ্ধারকাজে সেনার সাহায্য চাওয়া হয়েছে। ক্রোয়েশিয়ার প্রধানমন্ত্রী পেট্রিঞ্জা শহরের উদ্দেশে রওনা দিয়েছেন। তিনি জানান, সাহায্যের জন্য সেনাবাহিনী সেখানে রয়েছে। অস্থায়ী ক্যাম্প করে সেখানে শহরের বাসিন্দাদের থাকার ব্যবস্থা করা হয়েছে।

অন্যদিকে, এদিন ভূমিকম্পে কেঁপে ওঠে পাকিস্তান। ন্যাশনাল সেন্টার ফর সিসমোলজির দেওয়া তথ্য অনুযায়ী, এদিন ১১টা ৩ মিনিট নাগাদ ভূমিকম্প অনুভূত হয়। রিখটার স্কেলে কম্পনের মাত্রা ছিল ৪.৭। ভূমিকম্পের উৎসস্থল রাজধানী ইসলামাবদ থেকে ১১৩ কিলোমিটার উত্তরে। ভূমিকম্পের গভীরতা ভূপৃষ্ঠ থেকে ১০ কিলোমিটার গভীরে। তবে ভূমিকম্পে এখনও পর্যন্ত কোনও ক্ষয়ক্ষতির খবর পাওয়া যায়নি। বিগত কয়েকদিন ধরেই দেশ এবং বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্তে ভূমিকম্প হচ্ছে। কখনও মৃদু তো কখনও জোরালো। এভাবে একের পর এক ভূমিকম্প কোনও বড় বিপদের ইঙ্গিত নয়তো? চিন্তায় রয়েছেন ভূবিজ্ঞানীরাও।