নাইট কার্ফুতেও অনুশীলনের অনুমতি মুম্বইয়ে

মুম্বই : কোভিড-১৯-এর চোখ রাঙানি আরও গভীরে।

সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়, রাজীব শুক্লারা আইপিএল নিয়ে আশ্বস্ত করলেও, আশঙ্কা বাড়ছে। এদিন করোনা আক্রান্তের তালিকায় যুক্ত মুম্বই ইন্ডিয়ান্স ফ্র‌্যাঞ্চাইজির একাধিক নাম। ভারতীয় দলের প্রাক্তন উইকেটকিপার কিরণ মোরের শরীরে হানা দিয়েছে মারণ-ভাইরাস। বর্তমানে মোরে মুম্বই ফ্র‌্যাঞ্চাইজির সঙ্গে উইকেটরক্ষক পরামর্শদাতা হিসেবে যুক্ত।

- Advertisement -

মুম্বই ফ্র‌্যাঞ্চাইজির তরফে জানানো হয়েছে, মোরের শরীরে কোনও উপসর্গ নেই। আইসোলেশনেই রয়েছেন দলের চিকিৎসকদের তত্ত্বাবধানে। প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে দলের তরফে বলা হয়েছে, কিরণ মোরে কোভিড পজিটিভ। তবে উপসর্গহীন। বাকিদের থেকে আলাদা করে আইসোলেশনে রাখা হয়েছে। দলের চিকিৎসক কোভিড প্রোটোকল মেনে মোরের শারীরিক পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করছেন।

ইতিমধ্যে তিনজন ক্রিকেটার নীতীশ রানা (কেকেআর), অক্ষর প্যাটেল (দিল্লি ক্যাপিটালস) ও দেবদূত পাড়িক্কাল (আরসিবি) করোনা সংক্রামিত। নীতীশ সুস্থ হয়ে প্র‌্যাকটিসে ফিরেছেন। বাকি দুজন এখন আইসোলেশনে রয়েছেন।

চিন্তা বাড়িয়ে ওয়াংখেড়ে স্টেডিয়ামের আরও তিন কর্মীর রিপোর্ট পজিটিভ। দুজন মাঠকর্মী ও একজন কাঠমিস্ত্রী। সবমিলিয়ে আক্রান্ত মাঠকর্মীদের সংখ্যাটা বেড়ে ১২। নিশ্চিতভাবে যা চিন্তার বিষয়। সবাইকে আইসোলেশনে পাঠানো হয়েছে। প্রসঙ্গত, গত ২৪ ঘণ্টায় মহারাষ্ট্রে আক্রান্তের সংখ্যা ৪৭ হাজার। এরমধ্যে মুম্বইয়ে সংখ্যা ৯ হাজার।

করোনার চোখ রাঙানি রাজ্যজুড়ে বাড়লেও, আইপিএলের প্রতি সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিল মহারাষ্ট্র সরকার। জল্পনা উড়িয়ে ওয়াংখেড়েতে আইপিএল ম্যাচ আযোজনের অনুমতি দেওয়া হয়েছে। এমনকী মহারাষ্ট্রে ৩০ এপ্রিল পর্যন্ত নৈশ-কার্ফু জারি হলেও, দলগুলিকে রাতে অনুশীলন করতে পারবে।

মহারাষ্ট্র সরকারের তরফে বলা হয়েছে, ওয়াংখেড়েতে দশটি ম্যাচ হবে। এরমধ্যে ৯টিই শুরু রাত সাড়ে সাতটা থেকে। ম্যাচের টাইমিংয়েি বিষয়টি বিবেচনা করে, সিসিআই ও এমসিএ স্টেডিয়ামে দলগুলিকে দুটি সেশনে (বিকেল চারটি থেকে সন্ধ্যে সাড়ে ছটা, রাত সাড়ে সাতটা থেকে দশটা) প্র‌্যাকটিসের অনুমতি দেওয়া হল। ফলে দলের ক্রিকেটার, আইপিএল স্টাফদের মাঠে প্র‌্যাকটিস বা স্টেডিয়াম থেকে হোটেলে যাতায়াত করতে কোনও বাঁধা থাকবে না। তবে প্রত্যেককেই বায়ো-বাবলের মধ্যে থাকতে হবে। প্রোটোকল কঠোরভাবে মেনে চলতে হবে।