২০২১ বিধানসভা নির্বাচন: দলছুটদের ঘরে ফেরানোর নির্দেশ মলয় ঘটকের

192

আসানসোল: পশ্চিম বর্ধমান জেলা তৃণমূল কংগ্রেসের চেয়ারম্যানের দায়িত্ব সদ্যই পেয়েছেন। তাই দেরি না করে দলের পুরানো বা দলছুট কর্মীদের ঘরে ফেরার আহ্বান জানালেন আসানসোল উত্তর বিধানসভার বিধায়ক তথা রাজ্যের শ্রম ও আইন মন্ত্রী মলয় ঘটক। মঙ্গলবার তিনি আসানসোল উত্তর বিধানসভা কেন্দ্রের অন্তর্গত আসানসোল পুরনিগমের ৩২ টি ওয়ার্ডের সভাপতির সঙ্গে পৃথক পৃথক বৈঠক করেন। তাদের সঙ্গে তিনি এলাকার দলের সংগঠনের ত্রুটি বিচ্যুতি নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করেন। মন্ত্রী মলয় ঘটকের সঙ্গে উপস্থিত ছিলেন আসানসোল পুরনিগমের মেয়র পারিষদ তথা জেলা তৃণমূল নেতা অভিজিত ঘটক ও উত্তর ব্লকের তৃণমূল সভাপতি উৎপল সিনহা।

এদিন মন্ত্রী বলেন, পুরানো ও দলছুট কর্মীদের দলে ফিরিয়ে আনতে হবে। যারা বিভিন্ন কারণে দলের কাজকর্ম থেকে নিষ্ক্রিয় হয়ে গেছেন তাদের ঘরে ফেরাতে হবে। পাশাপাশি মুখ্যমন্ত্রীর উন্নয়নের কর্মসূচিগুলিকে সাধারণ মানুষের কাছে পৌঁছাতে হবে। বিজেপির অপপ্রচার রুখতে সংঘবদ্ধ হয়ে কাজ করতে হবে।

- Advertisement -

ব্লক সভাপতি উৎপল সিনহা বলেন, আগামী দিনে আমাদের পাখির চোখ হলো বিধানসভা নির্বাচন। প্রত্যেক ওয়ার্ড সভাপতিকে নিজের নিজের দায়িত্ব বুঝিয়ে দিয়েছেন মন্ত্রী মলয় ঘটক। তিনি বলেন, গত দু-তিন বছরে দলের সংগঠন বাড়াতে কার কতটা ভূমিকা ছিলো তা খতিয়ে দেখা হবে। পারফরমেন্স পছন্দ না হলে তাদের দায়িত্ব থেকে সরিয়ে দেওয়ার বার্তা তিনি দিয়েছেন।

উল্লেখ্য, তৃণমূল কংগ্রেসের জন্মলগ্ন থেকে মলয় ঘটকের হাত ধরে বর্ধমান জেলায় তৃণমূল বিস্তার লাভ করে। কিন্তু রাজ্যে তৃণমূল ক্ষমতায় আসার পরে মুখ্যমন্ত্রী তাকে বিভিন্ন সময় বিভিন্ন মন্ত্রকের দায়িত্ব দিয়েছেন। বর্তমানে তিনি রাজ্যের শ্রম ও আইন মন্ত্রকের দায়িত্বে রয়েছেন। তবে মমতা বন্দোপাধ্যায় তাকে জেলায় কোনও সাংগঠনিক পদের দায়িত্ব দেননি। এবার তা বিধানসভা নির্বাচনের আগে হলো।

প্রসঙ্গত, পশ্চিম বর্ধমান জেলায় তৃণমূল কংগ্রেসের সভাপতির দায়িত্ব আবার পেয়েছেন আসানসোল পুরনিগমের মেয়র জিতেন্দ্র তেওয়ারি। ইতিমধ্যেই জেলার পুরনো সব কমিটি ভেঙ্গে দেওয়া হয়েছে।