মাল পঞ্চায়েত সমিতি এখনও গঠন হয়নি, উঠছে প্রশ্ন

89

মালবাজার: মাল ব্লক ভেঙে নতুন করে মাল এবং ক্রান্তি ব্লক তৈরি হয়েছে। ব্লক পুনর্গঠনের পর ক্রান্তি পঞ্চায়েত সমিতি গঠন হয়েছে। ক্রান্তি পঞ্চায়েত সমিতির আওতায় সব স্থায়ী সমিতি গঠন করে কর্মাধ্যক্ষরাও পুরোদমে কাজ করছেন। অথচ নতুন করে এখনও পর্যন্ত মাল পঞ্চায়েত সমিতি পুনর্গঠিত হয়নি। সরাসরি ব্লক প্রশাসনের মাধ্যমে কাজ চলছে। নতুন করে পঞ্চায়েত সমিতি গঠন না হওয়ায় প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে। বিরোধী পক্ষ নানা কাজে সমস্যার অভিযোগ তুলেছেন। মালের মহকুমা শাসক পিয়ুষ ভগবানরাও সালুনকে জানান, ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নির্দেশমতো মাল পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি এবং বোর্ড গঠন নিয়ে উদ্যোগ নেওয়া হবে।

অবিভক্ত মাল ব্লক তথা মাল পঞ্চায়েত সমিতিতে ৩৩টি আসন ছিল। এরমধ্যে বাগরাকোট গ্রাম পঞ্চায়েতের একটি আসনে কোনও নির্বাচিত জনপ্রতিনিধি নেই। পঞ্চায়েত সমিতির বাকি ৩২টি আসনের ৩১টিতে তৃণমূল কংগ্রেস প্রতিনিধিরা আছেন। একটি আসন বিজেপির কাছে ছিল। বিধানসভা নির্বাচনের আগে মাল ব্লক ভেঙে নতুন করে মাল এবং ক্রান্তি ব্লক গঠনের নির্দেশিকা আসে। নির্বাচনের আগেই নবগঠিত ক্রান্তি ব্লকের বিডিও, জয়েন্ট বিডিও দায়িত্ব নেন। পঞ্চায়েত সমিতিও বিভক্ত হয়। মাল এবং ক্রান্তি উভয় পঞ্চায়েত সমিতিতে ১৬জন করে জনপ্রতিনিধি আছেন। বিধানসভা নির্বাচনের পর্ব মিটলে উভয় পঞ্চায়েত সমিতি পুনর্গঠনের নির্দেশিকাও প্রশাসনিক মহল থেকে জারি হয়। ক্রান্তি পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি হিসেবে পঞ্চানন রায় দায়িত্ব নেন। ওইদিনই মহকুমা প্রশাসনের তরফে নির্দেশিকা জারি করে কোভিড পরিস্থিতির জন্য মাল পঞ্চায়েত সমিতি গঠনের প্রক্রিয়াটি স্থগিত রাখা হয়। এরপর বেশকিছু সময় পেরিয়ে গেলেও এখনও পর্যন্ত ফের মাল পঞ্চায়েত সমিতি গঠনের নতুন কোনও নির্দেশিকা প্রশাসনিক স্তর থেকে জারি হয়নি।

- Advertisement -

রাজনৈতিক মহলের একাংশের মতে, প্রাথমিক পর্বে মাল পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি হিসেবে তৃণমূল কংগ্রেসের একাধিক দাবিদার ছিলেন। পরবর্তীতে এই নিয়ে বৈঠক হয়। সেখানে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়, সভাপতি হিসেবে ঊর্ধ্বতন মহল থেকে যাঁর নাম চূড়ান্ত হবে তাঁকেই সবাই মেনে নেবেন। একটি সূত্র বলছে, পূর্বতন পঞ্চায়েত সমিতির পূর্ত বিভাগের কর্মাধ্যক্ষ সুশীলকুমার প্রসাদ (বাবুয়া) সভাপতি পদের দৌড়ে অনেকটাই এগিয়ে আছেন। পঞ্চায়েত সমিতির সহ-সভাপতি, পূর্ত কর্মাধ্যক্ষ সহ অন্য গুরুত্বপূর্ণ পদে অন্য নেতৃত্বরা আসতে পারেন। এই নিয়ে এখনও রাজনৈতিক জল্পনা রয়েছে। ইতিমধ্যে জলপাইগুড়ি জেলা তৃণমূল কংগ্রেস সভানেত্রী হিসেবে মহুয়া গোপ দায়িত্ব নিয়েছেন। মহুয়াদেবী জানান, প্রক্রিয়া অনুসরণ করেই মাল পঞ্চায়েত সমিতি গঠন করা হবে। মালের বিধায়ক তথা রাজ্যের অনগ্রসর শ্রেণি কল্যাণ ও আদিবাসী উন্নয়ন দপ্তরের স্বাধীন দায়িত্বপ্রাপ্ত প্রতিমন্ত্রী বুলু চিকবরাইক জানান, শীঘ্রই পঞ্চায়েত সমিতি গঠন হবে। এদিকে, পঞ্চায়েত সমিতি গঠন না হওয়াকে কেন্দ্র করে অভিযোগ তুলেছেন বিরোধী পক্ষ। বিরোধীদের অভিযোগ, গত পঞ্চায়েত নির্বাচনের রাজ্যের শাসক দল জোর করে ক্ষমতা দখল করেছিল। বিজেপি জলপাইগুড়ি জেলা কমিটির সদস্য তথা মাল উত্তর মণ্ডল কমিটির পর্যবেক্ষক পঙ্কড তিওয়ারি জানান, মাল পঞ্চায়েত সমিতি গঠন না হওয়ায় সমস্যায় পড়েছেন স্থানীয় বাসিন্দারা। সিপিএম নেতা পবন প্রধান জানান, পঞ্চায়েত সমিতির নির্বাচিত বোর্ড থাকা দরকার।