পুরাতন মালদা, ৩১ অগাস্টঃ নাম ধরে হাঁকডাক করে গভীর রাতে বাড়িতে ঢুকে এক ছাত্রকে লক্ষ্য করে গুলি চালানোর ঘটনায় চাঞ্চল্য ছড়াল পুরাতন মালদার বালিয়া নবাবগঞ্জে। দুষ্কৃতির ছোঁড়া গুলি ওই ছাত্রের চোয়াল ছুঁয়ে বেরিয়ে যাওয়ায় অল্পের জন্য প্রাণে বেঁচে যায় সে। বর্তমানে আক্রান্ত ছাত্র মালদা মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। ঘটনার মূল অভিযুক্তকে গ্রেফতার করেছে মালদা থানার পুলিশ। ধৃতের কাছ থেকে এক রাউন্ড কার্তুজ ও একটি রিভলভার উদ্ধার হয়।

পুলিশ জানিয়েছে, আহত ছাত্রের নাম ভাস্কর বিশ্বাস (২০)। সে মঙ্গলবাড়ি গৌড় কলেজের প্রথম বর্ষের ছাত্র। একইসঙ্গে ব্যবসার কাজেও যুক্ত সে। ঘটনায় আহত হয়েছে তার ভাই শুভাশিস বিশ্বাসও (১৬)। তারা পুরাতন মালদার বালিয়া নবাবগঞ্জের বাঁশহাট্টার বাসিন্দা।

ভাস্কর জানিয়েছে, বৃহস্পতিবার তার বাবা, মা বাড়িতে ছিলেন না। সেই রাতে কয়েকজন বন্ধুর সঙ্গে এক আত্মীয়ের বাড়িতে কালি পুজোয় যোগ দিতে যায় সে। তখন বাড়িতে ছিল তার ভাই শুভাশিস। বন্ধুদের নিয়ে বাড়ি ফেরার পথে ভাস্কর দেখতে পায়, তাদের বাড়ির দরজা হাট করে খোলা। সন্দেহ হওয়ায় বন্ধুদের নিয়ে ঘরে ঢুকে দেখতে পায় সনাতন মণ্ডল নামে এলাকারই এক দুষ্কৃতি তার ভাই শুভাশিসের মাথায় রিভলভার ঠেকিয়ে টাকা পয়সা লুটের চেষ্টা করছে। ওই সময় ভাস্কর অভিযুক্তের ওপর ঝাঁপিয়ে পড়লে তাদের মধ্যে ধস্তাধস্তি হয়। এমনকি ভাস্করকে লক্ষ্য করে সনাতন গুলি চালায় বলে অভিযোগ। গুলি ভাস্করের চোয়াল ছুঁয়ে বেরিয়ে যাওয়ায় অল্পের জন্য রক্ষা পায় সে। এরপর ভাস্করের বন্ধুরা সনাতনকে ধরে ফেলে। চিৎকার-চেঁচামেচিতে ছুটে আসেন পাড়ার লোকজন। খবর দেওয়া হয় পুলিশে। ওই ঘটনায় ভাস্করের পাশাপাশি আঘাত পায় ভাই শুভাশিসও। তাদের প্রথমে মৌলপুর প্রাথমিক স্বাস্থ্যকেন্দ্রে ভরতি করা হয়। পরে ভাস্করকে মালদা মেডিকেল কলেজে রেফার করা হয়।

এদিকে, সনাতনের কাছ থেকে একটি রিভলবার ও এক রাউন্ড কার্তুজ উদ্ধার করে পুলিশ। ঘটনার সঙ্গে ব্যবসায়িক লেনদেন জড়িত থাকতে পারে বলে অনুমান পুলিশের। ধৃতকে শনিবার মালদা জেলা আদালতে তোলা হবে।