মমতা রূপী দুর্গামূর্তি! হরিশ্চন্দ্রপুরের দুর্গাপুজোকে ঘিরে বিতর্ক

208

হরিশ্চন্দ্রপুর: বিতর্ক যেন কিছুতেই পিছু ছাড়ছে না মালদার হরিশ্চন্দ্রপুরের পিপলা রামকৃষ্ণ ফ্যান ক্লাবের। তৃণমূল কর্মী-সমর্থক পরিচালিত ক্লাবের পুজোয় এবছর রাজ্য সরকারের বিভিন্ন প্রকল্পকে তুলে ধরা হয়েছে। ফুটবল আকৃতির মণ্ডপে দশভুজার রূপে অধিষ্ঠিত হয়েছিলেন স্বয়ং রাজ্য়ের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সেই সঙ্গে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের আদলে একাধিক মূর্তি তুলে ধরা হয়েছিল পুজোমণ্ডপে। বিজেপির অভিযোগ, মূল মণ্ডপে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় রূপী দশভুজা অধিষ্টিত হয়েছে। অন্যদিকে এক কোনায় ছোট্ট সিংহ বাহিনী প্রতিমা তৈরি করে পুজো করেছিল ক্লাব কর্তৃপক্ষ। ছিল না লক্ষ্মী গণেশ কার্তিক সরস্বতীর মূর্তিও। এতেই শুরু বিতর্ক।

বিজেপি নেতা রূপেশ আগরওয়াল জানান, পুজোয় রাজনীতির রং লেগেছে। গণেশ, কার্তিক, লক্ষ্মী, সরস্বতী ছাড়াই পুজো হয়ে গেল। মা দুর্গার জায়গায় মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এই পুজো ধর্মীয় ভাবাবেগে আঘাত করেছে। ঘটনাপ্রসঙ্গে তাঁর দাবি, প্রশাসনের তরফে উপযুক্ত পদক্ষেপ নিয়ে আগামী কয়েক বছরের জন্য এই পুজো বন্ধ করা হোক।

- Advertisement -

তবে শুধু গেরুয়া শিবির নয়, এহেন ঘটনায় নিন্দা প্রকাশ করেছে হরিশ্চন্দ্রপুরের পুরোহিত সমাজ। রাষ্ট্রীয় ব্রাহ্মণ মহা সংস্থার সভাপতি গৌতম চক্রবর্তীর কথায়, এটা ধর্ম এবং সংস্কৃতির অপমান।

যদিও বিতর্ক এড়িয়ে ক্লাবের সম্পাদক তথা তৃণমূলের জেলা সাধারণ সম্পাদক বুলবুল খান জানান, রাজ্যের জনমুখী প্রকল্পগুলো তুলে ধরতেই এই থিম। বিজেপি এই পুজোর ভালো দিক দেখছে না, কারণ ওরা বিভাজনের রাজনীতি করে। পুজো বন্ধ করে দেওয়া, সাম্প্রদায়িকতা এটাই বিজেপির রাজনীতি।