বিজেপি বাংলায় গুন্ডামি-সন্ত্রাস করে বেড়াচ্ছে, অভিযোগ মমতার

56

নন্দীগ্রাম: চৈত্রর রোদ বাড়ার সঙ্গে সঙ্গেই বঙ্গে বাড়ছে ভোটের উত্তাপ। ২৭ মার্চ থেকে বাংলায় ভোট ‘যুদ্ধ’ শুরু হয়েছে। ২৯৪টি আসনে ভোট হবে। তবে যে আসনের দিকে নজর সবচেয়ে বেশি সেটা হল জমি আন্দোলনের ধাত্রীভূমি নন্দীগ্রাম। কারণ এবার সেখানে তৃণমূলের প্রার্থী হয়েছেন খোদ রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। অন্যদিকে, বিজেপির প্রার্থী হয়েছেন তাঁরই একসময়ের বিশ্বস্ত সৈনিক শুভেন্দু অধিকারী। পূর্ব মেদিনীপুরের নন্দীগ্রামে ভোট ১ এপ্রিল। এখন চলছে শেষ মুহূর্তের প্রচার। মমতা ও শুভেন্দু-দুজনই মঙ্গলবার জোরদার প্রচার সারেন। যথারীতি তাঁরা এদিনও একে অপরের উদ্দেশ্যে তীব্র আক্রমণ শানিয়েছেন।

মঙ্গলবার সোনাচূড়ায় জনসভা করেন তৃণমূল সুপ্রিমো তথা রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সেখানে তিনি বলেন, ‘বিজেপির লোকজন সারা বাংলায় গুন্ডামি-সন্ত্রাস করে বেড়াচ্ছে। বিজেপির দাঙ্গা লাগানোর পরিকল্পনা আছে। মেয়েদের ওপর অত্যাচার করার জন্য বিজেপি বিহার, উত্তরপ্রদেশ থেকে গুন্ডা নিয়ে আসছে।‘

- Advertisement -

গেরুয়া শিবিরের উদ্দেশ্যে তোপ দেগে মমতা বলেন, ‘ওরা টাকা দিলে খেয়ে নেবেন। আর বিজেপিকে ভোটের খাতায় খরচা করে দিন। টাকা দেওয়া বেআইনি। বার বার নির্বাচন কমিশনকে বলা সত্ত্বেও টাকা বিলি চলছে। পুলিশের গাড়ি, সেন্ট্রাল ফোর্সের গাড়ি থেকে টাকা বিলি করা হচ্ছে। সারা দেশ থেকে টাকা আসছে। হাজার হাজার কোটি টাকা চুরি করেছে গদ্দার, মিরজাফররা।‘

ভোটারদের অভয় দিয়ে তৃণমূলনেত্রী বলেন, ‘কেউ যদি ভয় দেখায় ভয় পাবেন না। নিজের ভোট দিয়ে আসবেন। বহিরাগত গুন্ডাদের বাংলা থেকে দূর করে দিন।‘

জনগণের উদ্দেশে তৃণমূল সুপ্রিমোর ঘোষণা, ‘বিজেপিকে রাজনৈতিকভাবে কবর দিন। বিজেপিকে নন্দীগ্রাম সহ গোটা বাংলা থেকে বোল্ড আউট করে দিন আপনারা। একদম মাঠের বাইরে বার করে দিন।‘ মুখ্যমন্ত্রীর মুখে এদিন খেলা হবে স্লোগানও শোনা গিয়েছে। সেইসঙ্গে বিহার, উত্তরপ্রদেশের গুন্ডাদের কেন এরাজ্যে ঢুকতে দেওয়া হচ্ছে, তা নিয়ে জনসভা থেকে নির্বাচন কমিশনের কাছে প্রশ্ন রাখেন মমতা।

পেট্রোল, ডিজেল ও রান্নার গ্যাসের মূল্য বৃদ্ধি এবং রেল সহ বিভিন্ন সরকারি সংস্থার বেসরকারিকরণের জন্য এদিন বিজেপি শাসিত কেন্দ্রীয় সরকারের তীব্র সমালোচনা করেছেন মমতা।