শীতলকুচিতে ‘গণহত্যা’ করেছে বিজেপি সরকার, তোপ মমতার

163

জলপাইগুড়ি ব্যুরো: কোচবিহারের শীতলকুচির ঘটনাকে ‘গণহত্যা’ আখ্যা দিলেন তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। পাশাপাশি ঘটনার জন্য কেন্দ্রের বিজেপি সরকারের কড়া সমালোচনাও করেন তিনি। রবিবার চালসার টিয়াবনের ময়দানে নির্বাচনি প্রচার করেন মমতা। এরপরই রাজগঞ্জে সভায় বক্তব্য রাখেন। গায়ে কালো কাপড় জড়িয়ে হুইলচেয়ারে মঞ্জে ওঠেন তিনি। দুটি সভা থেকেই শীতলকুচির ঘটনা নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেন। নির্বাচন কমিশন ও বিজেপিকে কড়া ভাষায় আক্রমণ করেন তিনি। এদিকে, শীতলকুচি ঘটনার পর নির্বাচন কমিশনের তরফে আগামী ৭২ ঘণ্টায় রাজনৈতিক নেতাদের কোচবিহারে ঢোকায় নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে। সেই প্রসঙ্গে রীতিমতো জোর গলায় মমতা বলেন, ‘নির্বাচন কমিশন বলছে, শীতলকুচিতে যেতে পারবেন না। আমি সেখানে যাবই।’

এদিনের সভা থেকে মমতা কেন্দ্রের বিজেপি সরকারের বিরুদ্ধে তোপ দেগে বলেন, ‘কেন্দ্রীয় বাহিনী দিয়ে শীতলকুচিতে গণহত্যা করিয়েছে বিজেপি সরকার। তাদের গুলিতে চারটি তাজা প্রাণ চলে গিয়েছে।’ বুলেটের জবাব ব্যালটে দিতে হবে বলেও সুর তোলেন মমতা। তিনি বলেন, ‘আজ শীতলকুচিতে নির্বাচন কমিশন যেতে অনুমতি না দিলে ওই সমস্ত পরিবারের সঙ্গে আমার ভিডিও কনফারেন্সে কথা হয়েছে। আমরা তাদের পাশে আছি।’ পাশাপাশি এদিনের সভায় মমতা চা বাগানের শ্রমিকদের মজুরি বৃদ্ধি সহ একাধিক উন্নয়নের খতিয়ান তুলে ধরেন। আগামীতে রাজ্য সরকার আরও কি কি কাজ করবে, সেই কথাও বলেন তিনি। এদিন নাগরাকাটা বিধানসভার তৃণমূল প্রার্থী জোসেফ মুন্ডা ও মালের প্রার্থী বুলু চিকবাড়াইকের সমর্থনে ওই জনসভা করেন মমতা।

- Advertisement -