আদিবাসীদের মন জয়ের চেষ্টা, গণবিবাহের অনুষ্ঠান থেকেও কেন্দ্রকে খোঁচা মমতার

180

ফালাকাটা: আলিপুরদুয়ারে গণবিবাহের অনুষ্ঠানে যোগ দিয়ে ফের কেন্দ্রকে খোঁচা দিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। মঙ্গলবার মুখ্যমন্ত্রী বলেন, ‘চা বাগান সম্পর্কে অনেকেই অনেক কিছু বলে কিন্তু করে না। দিল্লি নির্বাচনের আগে বলে, বন্ধ চা বাগান খুলব। কিন্তু তারপরেই পালিয়ে যায়। আমরা পাশে থেকে ৯টি চা বাগান খুলেছি। বাকিগুলোও আমরা দেখব।’ এদিনের কর্মসূচিতে মুখ্যমন্ত্রীর পাখির চোখ ছিল আদিবাসী ভোট ব্যাংক। সেই লক্ষ্যেই তিনি জানিয়ে দেন, চা সুন্দরী প্রকল্পে ৬টি বন্ধ ও ৬টি চালু চা বাগানে ৪ হাজার ৬০০ জনকে আবাসনের নথি তুলে দেওয়া হবে। এই প্রকল্পে ৫০০ কোটি টাকা বরাদ্দ করা হয়েছে। ৩ বছরের মধ্যে গৃহহীনরা এই প্রকল্পে ঘর পাবেন বলে আশ্বস্ত করেন মুখ্যমন্ত্রী।

আদিবাসীদের মন জয় করতে মুখ্যমন্ত্রী জানিয়ে দেন, অলচিকি ভাষার উদ্ভাবক রঘুনাথ মুর্মু ও বিরসা মুন্ডার জন্মদিনে সরকারি ছুটি ঘোষণা করা হয়েছে। দীর্ঘদিনের দাবি মেনে ফালাকাটা ও ময়নাগুড়িকে নতুন পুরসভা করার কথাও ঘোষণা করেন তিনি।

- Advertisement -

বাম আমলের প্রসঙ্গ টেনে মুখ্যমন্ত্রী জানান, চা শ্রমিকদের মজুরি ৬৭ টাকা থেকে বাড়িয়ে ২০২ টাকা করা হয়েছে। এমনকি, আদিবাসীদের সারনা ধর্ম কোডকে জনগণনার নথিতে অন্তর্ভুক্ত করার দাবিতে তিনি চিঠি লিখেছেন বলেও জানান।

এদিন নাম করেই মঞ্চ থেকে বিজেপিকে তীব্র কটাক্ষ করেন মুখ্যমন্ত্রী। বলেন, ‘বিজেপি কথা বলে, কাজ করে না। কুৎসা, অপপ্রচার ও চরিত্রহনন করাই এই দলের কাজ।’

এদিন ফালাকাটায় রাজ্য সরকার আয়োজিত গণবিবাহের অনুষ্ঠানে সাত পাকে বাঁধা পড়েন ৪৫০ আদিবাসী যুগল। তাঁদের হাতে উপহার তুলে দেন মুখ্যমন্ত্রী। এমনকি, আদিবাসী নাচের দলের সঙ্গে পা মেলান তিনি।