একুশের ভার্চুয়াল ভাষণ থেকেই লোকসভার লড়াইয়ের সুর বেঁধে দিলেন মমতা

73

কলকাতা: একুশে জুলাইয়ের সভা থেকে প্রত্যাশামতোই বিজেপিকে তীব্র আক্রমণ করলেন তৃণমূল সুপ্রিমো তথা মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। বুধবার জোর গলায় জাতীয় স্তরে বিজেপি বিরোধী জোট গঠনের পক্ষে সওয়াল করেন তিনি। মমতা বলেন, ‘নিজেদের স্বার্থ ভুলে সবাইকে এককাট্টা হতে হবে। সব নেতাদের বলছি, ফ্রন্ট তৈরি করুন। না হলে মানুষ আমাদের ক্ষমা করবে না।’ তিনি বলেন, ‘২০২৪ সালে কি হবে জানিনা, তবে আগে থেকে পরিকল্পনা করতে হবে।’ তিনি জানিয়ে দেন, দু’তিনদিনের জন্য দিল্লি যাবেন। গুরুত্বপূর্ণ নেতাদের সঙ্গে বৈঠক করবেন। সভা থেকেই শারদ পাওয়ারদের অনুরোধ করেন, দিল্লিতে বৈঠকের আয়োজন করতে।

পেগাসাস কাণ্ডকে সামনে রেখে মমতার অভিযোগ, সারা দেশেই গোয়েন্দাগিরি চলছে। তাঁর দাবি, ‘রান্নার গ্যাসের দাম ৪৭ বার বেড়েছে। প্রায় পৌনে চার লক্ষ কোটি টাকা ক্ষতি হয়েছে গৃহস্থর। বিজেপি সরকার গণতান্ত্রিক অধিকার শেষ করে দিচ্ছে। যুক্তরাষ্ট্রীয় অধিকার, বিচারব্যবস্থাকে শেষ করছে।’ এই পরিস্থিতিতে দেশকে বাঁচাতে একমাত্র বিচারব্যবস্থার উপরেই আস্থা রাখেন মমতা। বিজেপিকে তোপ দেগে মমতার অভিযোগ, ‘ওরা নৃশংস, শান্তিতে কাউকে বাঁচতে দেবে না। আমি চিদম্বরমকে ফোন করতে পারি না, ফোনে আড়িপাতা হয়। আমাকে ফোনের ক্যামেরায় প্লাস্টার লাগাতে হচ্ছে।’

- Advertisement -

রাজ্যে ক্ষমতায় ফিরেই মমতা ঘোষণা করেছিলেন, একুশে জুলাইয়ের শহিদ দিবস ও নির্বাচন জয়ের বিজয়োৎসব একসঙ্গে হবে। কিন্তু, করোনাবিধি মেনে, গত বছরের মতো এবারও, ভার্চুয়ালি বক্তব্য রাখেন তৃণমূলনেত্রী। তাঁর বক্তব্য, সরাসরি সম্প্রচার করা হয় দেশের দিল্লি, গুজরাত সহ ৬টি রাজ্যে। দিল্লিতে কনস্টিটিউশন ক্লাবে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ভাষণ শুনতে উপস্থিত হন বিজেপি বিরোধী নেতা-নেত্রীরা। কার্যত মমতার ২১ জুলাইকে কেন্দ্র করে ধরা পড়ে বিরোধী ঐক্যের ছবি।